Monday , September 24 2018
Home / শিক্ষা / ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা ও প্রথম দিকের শিক্ষার্থী সবাই ছিলেন মাদ্রাসার ছাত্র !

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা ও প্রথম দিকের শিক্ষার্থী সবাই ছিলেন মাদ্রাসার ছাত্র !

ইতিহাসের একজন শিক্ষক হয়ে যিনি এই তথ্যটি জানেন না, তাঁকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বহিষ্কার করা উচিত। এমন মূর্খ শিক্ষকদের কারণেই আমাদের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আজ কলঙ্কিত। ছবিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠাতাদের কয়েকজন। সবাই টুপি-পাঞ্জাবি পরা এবং মাদ্রাসার ছাত্র।

উল্লেখ্য​, সম্প্রতি, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় উচ্চতর মাদ্রাসায় পরিণত হয়েছে এবং এটা কোভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়, বলে মন্তব্য করেছেন ঢাবির ইতিহাস বিভাগের অধ্যাপক ড. মেসবাহ কামাল। তিনি বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে আজকে যে ভর্তি হয় সে ভর্তির মধ্যে খোঁজ করে দেখুন মানে সেখানে যারা স্কুল থেকে পড়ে আসে তারা কত ভাগ ভর্তি হওয়ার সুযোগ পায়। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এখন একটা উচ্চতর মাদ্রাসায় পরিণত হয়েছে।আমি জেনে বুঝে ৩৪ বছর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াচ্ছি তার আগে ৬ বছর পড়েছি, ৪০ বছর আমি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে সম্পৃক্ত। আমি বলছি, চোখের ওপরে আমি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়কে একটা উচ্চতর মাদ্রাসায় হায়ার মাদ্রাসায় পরিণত হতে দেখছি। এবং এটা কোভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় উচ্চতর মাদ্রাসায় পরিণত হয়েছে এবং এটা কোভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়, বললেন ইতিহাস বিভাগের অধ্যাপক ড. মিসবাহ।এই অধ্যাপকের পরামর্শেই ইতিহাস বিভাগে ভর্তির জন্য ইংরেজিতে কন্ডিশন মার্কস করা হয়েছিল ১৭/১৮। পরে সেই সেশনে শিক্ষার্থী পেতে সমস্যায় পরে বিভাগটি। ফলে পরের বছর থেকে কন্ডিশন মার্কস কমানো হয়।

Posted by Campustimes.press on Sunday, January 28, 2018

২৭ জানুয়ারি শনিবার প্রেস ক্লাবে পলিটিকাল ইকোনমি অব মাদ্রাসা এডুকেশন ইন বাংলাদেশ শিরোনামে একটি বইয়ের মোড়ক উন্মোচনের সময় তিনি এসব কথা বলেন। তিনি আরও বলেন, আজকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে বোধহয় ৬০ ভাগের বেশি ভর্তি হয় মাদ্রাসা শিক্ষার্থী। স্কুল কলেজের শিক্ষার্থীরা জায়গা পাচ্ছে না। এবং তাদের ইংরেজির ভিত্তি এত খারাপ যে মাদ্রাসা থেকে যে ইংরেজি পড়ে আসে সেটা হচ্ছে ক্লাস ফোরের সমমান। ফলে তারা আপানার ইংরেজিতে দক্ষতা বিহীনভাবে তারা এসে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হচ্ছে। এবং এটা গোটা উচ্চ শিক্ষাকে কিন্তু টেনে টেনে নিচে নামিয়ে আসছে। ফলে আমাদের সন্তানরা, তারাও আমাদের সন্তান, মানে আমরা যারা আমাদের ছেলে মেয়েদের স্কুল কলেজে পড়াই তারা কিন্তু উচ্চশিক্ষার অধিকার থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। এটা হতে পারে না। এটা তাদের প্রতি অন্যাজ্য।

এই অধ্যাপক আরও বলেন, আর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সিনিয়র মাদারসায় পরিণত হবে এবং গোটা দেশটা মাদ্রাসার কাছে জিম্মি হয়ে যাবে এটা আমি মনে করিনা। বরং মাদ্রাসাকেই মূল ধারায় আনতে হবে। মাদ্রাসাতে ধর্ম শিক্ষার পাশাপাশি জীবন জীবীকার অনুসঙ্গী শিক্ষা পাঠক্রম অন্তর্ভুক্ত করে তাদেরকে মূলধারায় আনতে হবে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, তিনি নিয়মিত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে তার লেকচারে এরকম বক্তব্য দিয়ে থাকেন। এবং প্রতি বছর ইতিহাস বিভাগে অর্ধেকের বেশি শিক্ষার্থী মাদ্রাসা থেকে আসে। এছাড়াও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষায় প্রতিবছরই বিভিন্ন ইউনিটে প্রথম হয় মাদ্রাসার শিক্ষার্থীরা। এমনকি ঢাবির বিভিন্ন বিভাগের পরীক্ষায়ও অনেকে প্রথম হন। আবার অনেকে স্কলারশিপ নিয়ে বিদেশের বিখ্যাত সব বিশ্ববিদ্যালয়ে উচ্চতর গবেষণার যাচ্ছেন।

About banglamail

Check Also

এবার আমেরিকার মানবাধিকার সংস্থার জরিপে বিশ্বের সেরা স্বৈরশাসক হলেন শেখ হাসিনা !

এক বছর আগে নিউ ইয়র্ক, আমেরিকায় অবস্থিত মানবাধিকার সংস্থা WRTP(WE ARE THE PEOPLE) গত একশত …