Monday , September 24 2018
Home / ফেসবুক স্ট্যাটাস থেকে / শেষমেশ বিএনপিকে জামায়াত ত্যাগ করতেই হবে – পিনাকি

শেষমেশ বিএনপিকে জামায়াত ত্যাগ করতেই হবে – পিনাকি

কেউ কেউ বলছেন, ডঃ কামাল হোসেনের ​পাঁচ ​হাজার ভোটও নাই। কথা সত্য। কিন্তু আপনার তো ​পাঁচ​ কোটি ভোট আছে। ​তা কি ​ব্যালট বাক্সে ফেলতে পারছেন? ভোটের হিসাবে তো কোন ইলেকশনেই আপনাকে আওয়ামী লীগের হারাতে পারার কথা না। কিন্তু জিততে পারতেছেন কি?রাজনীতি সিম্পল ভোটের যোগ বিয়োগ না। সেইটা হইলে হাই স্কুলের অংকের মাস্টার সবচেয়ে প্রাজ্ঞ পলিটিশিয়ান হইতো।

ডঃ কামাল হোসেন তরকারিতে রাইট প্রপোরশনের লবন। ডঃ কামাল হোসেন নিজে তরকারি না। তাই উনার কত ভোট আছে সেটা মোটেও বিবেচ্য না। শুধু লবন বা লবন ছাড়া তরকারি; কোনটাই খাওয়া যায়না। আপনি তৈরি তরকারিতে রাইট প্রপোরশনে লবন দিবেন নাকি লবন ছাড়াই পরিবেশন করবেন সেইটা আপনার সিদ্ধান্ত।

ডঃ কামাল হোসেন এই জোটে কতখানি গুরুত্বপূর্ন আর কেন গুরুত্বপূর্ন সেটা যদি কাউকে লিখে বুঝিয়ে দিতে হয় তাহলে তার সাথে রাজনৈতিক আলাপের দরকার ​কি​? আওয়ামী লীগের হার্ডকোর লোকেদের ​রিঅ্যাকশন দেখেন। তারাও চায় কামাল হোসেনের এই ঐক্য না হোক। বিএনপি কামাল হোসেনের সাথে না যাক। তাদের সমস্ত আক্রমণের​ লক্ষ্যবস্তু এখন কামাল হোসেন। কেন, এই প্রশ্ন নিজেকে করুন।

​​রাজনীতি মানে দেশীয় ও আন্তর্জাতিক রাজনীতির পুঙ্খানুপুঙ্খ বিশ্লেষণের হিম্মত দিয়ে নিজের জন্য বর্তমান সময়ের সবচেয়ে উপযুক্ত রাস্তাটা ​খুঁজে​ নেয়া। রাস্তা পেরুবার জন্য তিন ধরনের সিগন্যাল থাকে; লাল, হলুদ আর সবুজ। লাল থেকে সবুজে সরাসরি যাওয়া যায়না। হলুদ হয়ে সবুজে যেতে হয়। ডঃ কামাল হোসেনের জোট আমাদের রাজনৈতিক গন্তব্যের সেই হলুদ স্টপ ওভার। এই হলুদ স্টপ ওভারে থামার মত নিয়তি আমরা নিজেরাই তৈরি করেছি। এটা সবাইকেই মেনে নিতে হবে। নইলে আরো ​অন্ততঃ পাঁচ​ বছর আওয়ামী শাসনে থাকার মানসিক প্রস্তুতি নিতে হবে।

আওয়ামীলীগ বিরোধী সকল শক্তিকে নিয়ে ঐক্য হলে সবচেয়ে ভালো হতো। কিন্তু সেটা হবার বাস্তব শর্ত উপস্থিত নাই। সেইটার জন্য যে আগাম প্রস্তুতি আর বোঝাপড়া দরকার ছিলো সেটা করা হয়নি। এইটা আওয়ামী বিরোধী শিবিরের ব্যর্থতা।

ডঃ কামাল হোসেনের জোট বাংলাদেশের শেষ নিয়তি নয়। বাংলাদেশের আল্টিমেইটলি আমাদের একটা দেশপ্রেমিক ঋজু মেরুদণ্ডওয়ালা জাতিয়তাবাদী সরকার দরকার, যারা বৃহৎ প্রতিবেশী আর পরশক্তির সাথে ​তুরস্কের ​এরদোয়ানের মতো ডিল করতে পারবে। সেটা এরদোয়ানের মত ভুমিকা কামাল হোসেনের জোট কখনোই নিতে পারবেনা। আমাদের তার জন্য আরো কিছুদিন অপেক্ষা করতে হবে।

সেই শক্তি দৃশ্যমান নয়, কিন্তু সেই শক্তি গড়ে ওঠার শর্ত তৈরি হয়ে আছে। আমার অনুমানই ঠিক হবে। শেষ পর্যন্ত ​তাড়াহুড়ো করে বিএনপি জামাতকে ত্যাগ করে ডঃ কামাল হোসেনের জোটে যাবে, তার আগে সুচিন্তিত একটা পলিটিক্যাল অবস্থান নেয়ার সময় আর কর্মী সমর্থকদের মানসিকভাবে প্রস্তুত করার সুযোগ হারাবে। বিএনপিকে জামাত ছাড়ার পরামর্শ আমি দেই নাই। ডঃ কামাল হোসেন দিয়েছেন। এই শর্ত দেয়ার মানে কী, আর এই পরিস্থিতিতে কী করা দরকার সেইটা আমি তুলে ধরেছি। এটা যদি ভালো না লাগে তাহলে কয়েকটা দিন অপেক্ষা করেন, দেখবেন কার পলিটিক্যাল ভবিষ্যতবাণী ফলেছে।

আর যদি মনে করেন বিশ দলের জোটবদ্ধ নির্বাচন করব এই রেজিমকে হঠাবেন, তাহলে শুভকামনা রইলো। গুড লাক।

About banglamail

Check Also

বাংলাদেশের বাইরে শেখ হাসিনা যেখানেই যাচ্ছেন, ব্যাকডোর দিয়ে যেতে হচ্ছে !

বাংলাদেশের বাইরে শেখ হাসিনা যেখানেই যাচ্ছে, প্রটেষ্টের ঠেলায় বেশিরভাগ ক্ষেত্রে বিভিন্ন হোটেল এবং ভেন্যুতে তাকে …