চবি ছাত্রলীগের ১১ নেতার নামে চুরির মামলা

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের ১১ নেতাসহ অজ্ঞাত আরো ৫-৬ জনকে আসামি চুরির অভিযোগে মামলা দায়ের করা হয়েছে। বুধবার রাত ৮টার দিকে হাটহাজারী থানায় কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক দিয়াজ ইরফান চৌধুরীর মা জাহেদা আমিন বাদী হয়ে এ মামলা করেন।
হাটহাজারী থানা সূত্রে জানা গেছে, গত শনিবার (২৯ অক্টোবর) রাত সাড়ে ১১টার দিকে ছাত্রলীগের একটি পক্ষ দিয়াজ ইরফানের বাড়িতে হানা দিয়ে বিভিন্ন মূল্যবান জিনিসপত্র চুরি করে এ অভিযোগ এনে মামলা দায়ের করা হয়। এতে প্রধান আসামি করা হয় ছাত্রলীগের আপ্যায়ন বিষয়ক সম্পাদক মিজানুর রহমানকে।

এছাড়া আরো যাদের আসামি করা হয়েছে তারা হলেন- সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ আরমান, যুগ্ম সম্পাদক আবু তোরাব পরশ, সহ-সভাপতি আহসান হাবীব রূপু, সহ-সভাপতি আনোয়ারুল আলম চৌধুরী রকি, জ্যেষ্ঠ সহ-সভাপতি মনসুর আলম, সহ-সম্পাদক মিজানুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক ইমতিয়াজ অভি, কার্যনিবাহী সদস্য আরেফুল হক অপু, সহ-সভাপতি আবদুল মালেক, তৌহিদুল ইসলাম জিমেল।

জাহেদা আমিন চৌধুরী জাগো নিউজকে বলেন, শনিবার রাতে হামলা, ভাঙচুর ও লুটপাট করে ৭-৮ লাখ টাকার মূল্যবান জিনিসপত্র নিয়ে যায় ছাত্রলীগ নামধারীরা। এ ঘটনায় দু`দিন চেষ্টার পর বুধবার মামলা নেয় হাটহাজারী থানা পুলিশ। তবে লুটপাটের মামলা করতে চাইলেও থানায় তা চুরির মামলা হিসেবে এজাহারভুক্ত করা হয়।

মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে হাটহাজারী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বেলাল উদ্দিন মো. জাহাঙ্গীর আলম জাগো নিউজকে বলেন, তদন্ত করে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

লুটপাটের মামলা না নেয়ার বিষয়ে তিনি বলেন, এ ধরনের অভিযোগ সত্য নয়। বাদী যে অভিযোগ করেছেন সে মামলাই নেয়া হয়েছে।

জাগোনিউজ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।