ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন (স্থগিত) : আওয়ামীলীগ প্রার্থী ও বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে হামলা-ভাংচুর

মাদারীপুর সদর উপজেলার ঘটমাঝি ইউনিয়ন পরিষদের স্থগিত নির্বাচন আগামীকাল ৩১ অক্টোবর অনুষ্ঠিত হবে। এই নির্বাচনকে কেন্দ্র করে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামীলীগের প্রার্থী ও বিদ্রোহী প্রাথীর সমর্থকদের মধ্যে আধিপত্য বিস্তারের সূত্র ধরে শনিবার দুপুর থেকে বিকাল পর্যন্ত দফায় দফায় হামলা, দোকানপাট ও ঘরবাড়ি ভাংচুর, অগ্নিসংযোগ ও ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এতে কমপক্ষে ১০ জন আহত হয়েছে ।

স্থানীয়, পুলিশ, আহতসহ একাধিক সূত্রে জানা গেছে, নির্বাচনের শুরু থেকেই আওয়ামীলীগের চেয়ারম্যান প্রার্থী বাবুল আক্তার ও বিদ্রোহী প্রার্থী বাদল ফকিরের সাথে উত্তেজনা লেগেই ছিলো। এরই সূত্র ধরে শনিবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত দফায় দফায় হামলা, দোকানপাট ও ঘরবাড়ি ভাংচুর, অগ্নিসংযোগ ও ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে।

আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী বাদল ফকিরের সমর্থকরা আওয়ামীলীগের প্রার্থী বাবুল আক্তারের মন্টারপুল এলাকার নির্বাচনী কার্যালয়ে হামলা চালিয়ে ভাংচুরসহ আশে পাশের প্রায় ১০/১৫টি দোকান ভাংচুর ও ২টি বাড়িতে অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটে। এছাড়াও ৩টি ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনাও ঘটেছে।

এরপরে আওয়ামীলীগের প্রার্থী বাবুল আক্তারের সমর্থকরা ছয়না গ্রামে গিয়ে আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী বাদল ফকিরের সর্মথক সামচু হাওলাদার, কালাম হাওলাদার, হায়দার হাওলাদার, ফিরোজ হাওলাদার, সিরাজ হাওলাদার, নুর ইসলাম বেপারী, মালেক দর্জী, লতু দর্জী, নুরু দর্জীসহ প্রায় ১০/১২টি ঘরে আগুন ও প্রায় ২০টি ঘর কুপিয়ে ভাংচুর করেছে। এই ঘটনায় উভয় পক্ষের কমপক্ষে ১০ জন আহত হয়েছে। আহতদের মাদারীপুর সদর হাসপাতালসহ বিভিন্ন ক্লিনিকে ভর্তি ও প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছে।খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ ও র‌্যাব গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। ঐসব এলাকায় উত্তেজনা থাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন আছে।

মাদারীপুর সদর থানার এসআই মো. হাসান বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ, র‌্যাব ও ফায়ার সার্ভিস গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এনেছে। বর্তমানে উত্তেজনা থাকায় এলাকায় পুলিশ মোতায়েন আছে।

মেহেদী হাসান সোহাগ
মাদারীপুর

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।