গোপালগঞ্জে মন্দিরে মূর্তি ভাঙচুর

গোপালগঞ্জের রঘুনাথপুর কোটাবাড়ী সার্বজনীন দুর্গা মন্দিরে মূর্তি ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে। সোমবার দিবাগত রাতে এলাকার বখাটে যুবকরা এ ঘটনা ঘটায় বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

সরেজমিনে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে জানা গেছে, কালীপূজা উপলক্ষে সোমবার রাতে রঘুনাথপুর দক্ষিণপাড়া মডেল প্রাইমারি স্কুল মাঠে একটি সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। একদল বখাটে যুবক ওই অনুষ্ঠানে যায়। অনুষ্ঠান শেষে ফেরার পথে তারা অনুষ্ঠানে যোগদানকারী মেয়েদেরকে উত্ত্যক্ত করে। এ সময় মেয়েদের সঙ্গে থাকা পুরুষরা তাদের বাধা দেয় ও তিরস্কার করে। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে রঘুনাথপুর উত্তর পাড়ার সরু শেখের ছেলে সজীব শেখের নেতৃত্বে বখাটে যুবকরা গভীর রাতে কোটাবাড়ী সার্বজনীন দুর্গা মন্দিরে হামলা চালায় এবং মন্দিরের স্বরস্বতী, কার্তিক, দূর্গা ও অসুরের মূর্তি ভাঙচুর করে।

মন্দিরের পূজারী গীতা বিশ্বাস বলেন, ‘রাত সাড়ে ১২টার দিকে শব্দ শুনে ঘর থেকে বের হই। তারপর দেখি ৮-১০ জন যুবক লাঠিসোটা নিয়ে ছুটাছুটি করছে। এ সময় আত্মরক্ষার জন্য সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান থেকে ফেরা মেয়েরা আমাদের বাড়ির মধ্যে ঢুকে আশ্রয় নেয়। একপর্যায়ে লাঠিসোটাধারী ওই যুবকরা মন্দিরে হামলা চালায় ও মূর্তি ভাঙচুর করে।’

মন্দির কমিটির সাধারণ সম্পাদক রিপন বিশ্বাস বলেন, আমরা এ ঘটনায় মর্মাহত ও ক্ষুদ্ধ। আমাদের অনুভূতিতে আঘাত করা হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানাচ্ছি।

এ ঘটনায় রঘুনাথপুরসহ আশপাশের হিন্দু জনগোষ্ঠীর মধ্যে তীব্র ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১২টার দিকে এলাকার হিন্দু জনগণ বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে জেলা শহরে আসেন এবং প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন করেন।
এ ঘটনার খবর পেয়ে গোপালগঞ্জের এএসপি (সার্কেল) আমিনুল ইসলাম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন এবং দোষীদের খুঁজে বের করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দেন।

বাংলা ট্রিবিউন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।