একজন প্রতিবন্ধী মামুনের সফলতার গল্প

প্রতিবন্ধীতা পরিবার ও সমাজের বোঝা নয়, সমাজের উচুতলার মানুষ বা রাষ্ট্রের বিভিন্ন দপ্তরের সহযোগিতা পেলে নিজের ঐকান্তিক দৃঢ় প্রচেষ্টা ও কঠোর পরিশ্রমের মাধ্যমে প্রতিবন্ধী নারী বা পুরুষ রাষ্ট্রের সম্পদে পরিণত হতে পারে এটাই প্রমাণ করলেন ঝিনাইদহের হরিণাকুন্ডু উপজেলার শারীরিক প্রতিবন্ধী যুবক মামুন। মামুন এ বছর মাশরুম চাষে সফল প্রতিবন্ধী আত্মকর্মী হিসাবে জাতীয় যুব পুরস্কার-২০১৬ লাভ করেছেন। তিনি ১ নভেম্বর রাজধানীর উসমানী স্মৃতি মিলনায়তন থেকে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার নিকট থেকে এ পুরস্কার গ্রহন করেন।

মামুন উপজেলার পৌরসভাধীন মান্দারতলা গ্রামের আব্দুর রহিম জোয়ার্দ্দারের ছেলে। তিন ভাই ও তিন বোনের মধ্যে মামুন সবার বড়।সে ১৯৮৬ সালে ঝিনাইদহের ঐতিহ্যবাহী ওয়াজীর আলী মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে এস.এস.সি পাশ করার পর শারীরিক প্রতিবন্ধীতা ও সাংসারিক প্রয়োজনে আর পড়াশোনা করা সম্ভব না হলেও মামুন প্রতিবন্ধী হিসাবে পরিবার ও সমাজের বোঝা না হয়ে পরিবার, সমাজ ও দেশের প্রয়োজনে কিছু একটা করার দৃঢ় প্রত্যয় ও মনোবল নিয়ে ২০০২ সালে স্থানীয় যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর থেকে প্রশিক্ষণের মাধ্যমে ১১ হাজার টাকা যুব ঋণ নিয়ে নিজ বাড়ীতে মাসরুম চাষ, টিসুকালচার, মাসরুম পণ্য উৎপাদন ও বিপনন শুরু করেন। এর পর আর মামুন কে পিছনে ফিরে তাকাতে হয়নি।

তার এ উদ্যোগকে আরও সামনের দিকে এগিয়ে নিতে স্থানীয় যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর মামুনের পাশে দাড়ায়। উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা বেল্লাল হোসেন জানান, প্রচন্ড আত্মবিশ্বাসী শারীরিক প্রতিবন্ধী যুবক মামুনের মাসরুম চাষে তাকে উৎসাহ দিতে ও সাবলম্বী হিসাবে গড়ে তুলতে প্রশিক্ষণের মাধ্যমে তাকে ৬০ হাজার টাকার যুব ঋণ প্রদান করা হয়। মামুন উপজেলার সফল আত্মকর্মী সে উপজেলার গর্ব। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মনিরা পারভীন বলেন, মামুন শুধু হরিণাকুন্ডু উপজেলা নয় সে সারা বাংলাদেশের গর্ব। সফল শারীরিক প্রতিবদ্ধী মামুনকে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সব ধরনের সহযোগিতা করা হবে বলে তিনি জানান।

সফল শারীরিক প্রতিবন্ধী যুবক সফল আত্মকর্মী মামুন নিজের প্রতিবন্ধীতাকে দূরে ঠেলে দৃঢ় প্রতিজ্ঞা নিয়ে দূরবার এগিয়ে যাওয়ার বর্ণনা করে নিজেকে ও নিজের উদ্যোগে প্রশিক্ষণের মাধ্যমে উপজেলার বেকার যুবক যুবতীদের মাসরুম চাষে উদ্বুদ্ধ করার ইচ্ছা ব্যাক্ত করে বলেন উপজেলা প্রশাসন ও যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের সহযোগিতা পেলে তিনি সারা ঝিনাইদহে মাসরুম চাষে ব্যাপক ভূমিকা রাখতে পারেন।

ঝিনাইদহ
আতিকুর রহমান

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।