বান্দরবানে বন ধ্বংস করে ইটভাটা তৈরি

ওমর ফারুক, বান্দরবানঃ বান্দরবানের রুমা উপজেলার বড়শিপাড়া ঘেঁসে জেলা প্রশাসক ও পরিবেশ অধিদপ্তরের অনুমতি ছাড়া অবৈধভাবে চলছে ইটভাটা স্থাপনের প্রস্তুতি কাজ। ৩টি বুলডোজার ও ১টি স্কেভেটর দিয়ে নির্বিচারে পাহাড় কেঁটে চলছে ইটভাটা স্থাপনের চুড়ান্ত প্রস্তুতি।
ইটভাটা স্থাপনের প্রস্তুতি কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে। এখন ইট তৈরি কাজ শুরু হবে বলে জানান স্থানীয়রা।
উপজেলার রুমা সদর থানা থেকে প্রায় ৩ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত বগালেক সড়ক ঘেঁসে বড়শি পাড়ার নিকটে চলছে অবৈধ ইট ভাটা গড়ে তোলার প্রস্তুতি। এতিমধ্যে স্তুপ করা হয়েছে ইট পোঁড়ানোর প্রধান ও সহজ লভ্য উপাদান সংরক্ষিত সরকারি রিজার্ভের কাঠ।

স্থানীয়রা জানান, বান্দরবান জেলা শহরের ব্যবসায়ী আনিসুর রহমান সুজন এই অবৈধ ইটভাটা গড়ে তুলতে ৩টি বুলডোজার ও ১টি স্কেভেটর দিয়ে নির্বিচারে পাহাড় কাঁটে সাবাড় করছেন। ইটভাটায় পাহাড় কাঁটার দায়িত্বে থাকা প্রকৃতি বড়ুয়া জানান, ইটভাটার মালিক আনিসুর রহমান সুজন। ইটভাটা স্থাপনে বৈধ কাগজ পত্র বা পরিবেশ অধিদপ্তরের অনুমতি আছে কিনা জানতে চাইলে প্রকৃতি বড়ুয়া বিষয়টি এড়িয়ে যান। তবে ইটভাটায় ড্রাম দিয়ে অস্থায়ী চিমনী ব্যবহার করা হবে বলে তিনি বাংলামেইল৭১কে জানান। যা (ড্রাম দিয়ে চিমনী বানানো) পরিবেশ অধিদপ্তের নিষেধাজ্ঞা রয়েছে।

রুমা উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি শৈহ্লাচিং মারমা বাংলামেইল৭১ কে জানান, প্রভাবশালী রাজনৈতিক নেতারাই বড়শিপাড়া ঘেঁসে অবৈধভাবে ইটভাটা স্থাপন করছেন। ইটভাটার কালো ধোঁয়া ঐ এলাকার মানুষের স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে পড়তে পারে বলে মনে করেন তিনি। এটি বন্ধের জন্য দ্রুত প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন তিনি।

তিনি আরও জানান, উপজেলা মাসিক সভায় অবৈধভাবে স্থাপিত এই ইট ভাটা দ্রুত বন্ধের জন্য উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও উপজেলা চেয়ারম্যান মহোদয়কে অনুরোধ করা হয়েছে।

ইট ভাটার মালিক আনিসুর রহমান সুজন বাংলামেইল৭১ কে বলেন, ‘বুলডোজার দিয়ে পাহাড় কেটে মাটি সমান করে ইটভাটার প্রস্তুতির কাজ চলছে। এটা আমার একার নয় আমার সাথে আরও কয়েকজন রয়েছেন। পরে সবার সাথে যোগাযোগ করব।’

রুমা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. শরিফুল হক জানান, ইটভাটা সরেজমিনে পরিদর্শন করে বৈধ কাগজ পত্র কিংবা কর্তৃপক্ষের অনুমতি আছে কিনা দেখা হবে এবং এতে পরিবেশের ক্ষতি হচ্ছে কিনা তা দেখে প্রয়োজনীয় আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

পরিবেশ অধিদপ্তরের চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিচালক মাসুদ করিম জানান, অবৈধভাবে স্থাপিত ইট ভাটার মালিকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।