গোবিন্দগঞ্জের সাঁওতালদের কান্না এবং আমাদের বিবেক!

গোবিন্দগঞ্জের সাঁওতালদের সমস্যা এবং সৃষ্ট দূর্ঘটনা নিয়ে জানার পরই ফেইসবুকে প্রথম স্টাটাস দেই। সোস্যাল মাধ্যমে যারা মোটামুটি দিনের কোন না সময় একটু আধটু ঢু দেই তাদের প্রতি আহ্ববান জানিয়েছিলাম। বিশেষ করে বাংলা ট্রিবিউনে সংবাদটি পড়ার পর খুব অসহায় লাগছিল। এতগুলো পরিবার (প্রায় ২০০ পরিবার) এতগুলো মানুষ! যাদের মধ্য বৃদ্ধ, শিশু, মহিলা তো আছেই রোগীও থাকার আশংকা রয়েছে। উত্তরাঞ্চলে শীত যেহেতু একটু আগেভাগেই শুরু হয় তাই রাতের বেলায় শীতের কষ্ট তাদের বাড়তি পোহাতে হচ্ছে।

আসল কথায় আসি সোস্যাল মিডিয়া বিশেষ করে ফেইসবুক আমরা যারা ব্যবহার করি তাদের বেশিরভাগই হয়তো এখানকার বিষয়গুলোকে অত সিরিয়াসলি নেন না। এখান আবেগ অনুভূতি বা আহ্ববানগুলোও আমার কাছে মনে হয়েছে সাময়িক ক্ষনস্থায়ী!
আমি অবাক হয়েছি, আমরাতো চাইনিজে বসে খাবার সাথে সেলফি, উহার সাথে তাহার সাথে কত কিছুর সাথে কত কি প্রতিদিন শেয়ার করি তার ইয়াত্তা নেই। এসব পোস্টগুলোতে দেখবেন লাইক শেয়ারের বন্যা বয়ে যায়।

গতকালের বিষয়টা নিয়ে আমি উন্মুক্ত মতামত চেয়েছিলাম। একটা জঘন্য ঘটনা ঘটেছে বাংলাদেশে। রাস্ট্র কর্তৃক তার নিজ দেশের নাগরিককে অমানবিকভাবে গুলি চালিয়ে, বাড়িঘর পুড়িয়ে দিয়ে একটা ছোট নিরীহ সম্প্রদায়কে উৎখাত করা হয়েছে। কিন্তু তারা তাদের ভিটেমাটি ছেড়ে কোথায় যাবে তার উত্তর হয়তো বা ক্ষমতাসীনগণ রেডি করে রেখেছেন।

আমি আশাহত হয়েছি। কার জন্য সোশ্যাল মিডিয়া কি সেটা তিনিই ভালো জানেন। কিন্তু আমার জন্য এটা পল্টন ময়দান কিংবা সোহরাওয়ার্দী উদ্দ্যান। এখানে আমি নিয়মিত আমার জনগণকে সামনে রেখে আমার মতামত দেই, তাদের ভালোলাগা, মন্দলাগা, আবেগ অনুভূতি শেয়ার করি, পর্যবেক্ষন করি। এটা আমার কাছে অনেক বেশি সিরিয়াস বিষয়। যে সোস্যাল মিডিয়াকে আপনারা যারা সমাজের জন্য ব্যবহার করতে পারেন না তাদের জন্য শুভকামনা।

আজ ক্রিয়ো থেকে আমরা কয়েকজন ঢাকায় চিকিৎসারত একজন সাঁওতাল ভাই যিনি চোখে মাথায় গুলিবিদ্ধ হয়েছেন তাকে দেখতে গিয়েছি। তাদের সাথে কথা বলে মনে হয়েছে এই মূহুর্তে তাদের অনেক বেশি সাহায্য প্রয়োজন। আমি জানি অনেকের সময় হবে না অনেকেই বিরক্তিবোধ করবেন। যে কোথাকার কোন সাঁওতাল তার জন্য আমি কেন করবো? অনেক প্রশ্নের সম্মূখীন হতে পারেন অনেকেই।

কিন্তু আমরা বিশ্বাস করি এদেশে এখনো সেই তারুণ্য অবশ্যই আছে যারা দেশের প্রতিটি মানুষের জন্য ওয়াদাবদ্ধ। আমরা সেই তারুণ্যের সাড়া পেতে চাই যারা মনে করেন বিপন্ন মানুষের পাশে দাঁড়াতেই হবে আমাদের এটা শুধু আমার কর্তব্য নয় এটা আমার অঙ্গীকার।

সেসব প্রতিশ্রুতিশীল তারুণ্যের জন্য পথ চেয়ে আছি আমরা। আসুন প্রত্যেকটি নির্যাতিত মানুষের পাশে নিজের সবটুকু আন্তরিকতা মানবিকতা নিয়ে এগিয়ে আসি। এখানে কোন দল নেই, রাজনীতি নেই, কোন পাওয়ার বাসনা নেই! আমরা বিশ্বাস করি

‘কান্ডারী বল ডুবিছে মানুষ
সন্তান মোর মার’ ।
যোগাযোগঃ 01726976000

Wahid Faruque

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।