বয়স্ক ভাতার পরিবর্তে ইউপি সদস্যের থাপ্পর খেলেন ৭৭ বছরের বৃদ্ধ!!

নীলফামারীর কিশোরীগঞ্জ উপজেলায় পাঁচ হাজার টাকা উৎকোচ নিয়েও দীর্ঘ চার বছরেও বয়স্ক ভাতার কার্ড পাননি চাঁদখানা ইউনিয়নের নগরবন গ্রামের মৃত আব্বাস উদ্দিনের ছেলে বাচ্চু মামুদ(৭৭)বৃদ্ধ । টাকা হাতিয়ে নেয়া ওই ইউনিয়নের এক নম্বর ওয়াডের ইউপি সদস্য- লুৎফর রহমানের নিকট উৎকোচের ৫ হাজার টাকা ফেরত চাইতে গিয়ে উল্টো তার হাতে থাপ্পর খেয়েছেন ৭৭ বছর বয়সী ওই বৃদ্ধ!! এ ঘটনায় ওই বৃদ্ধ আজ রবিবার(১৩ই নভেম্বর) কিশোরীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন।

এদিকে বৃদ্ধর লিখিত অভিযোগের কথা জানতে পেরে ইউপি সদস্য এলাক্ থেকে গাঁঢাকা দিয়েছেন।সাধারন এলাকাবাসী এই বেমানান ন্যাক্কারজনক ঘটনার জন্য উক্ত ইউপি সদস্যরর দৃষ্টান্তমুলক বিচার দাবি করেছেন।

বৃদ্ধের অভিযোগে জানা গেছে, উক্ত ইউপি সদস্য গত মেয়াদে ও এবারও ইউপি সদস্য নির্বাচিত হন।ইউপি সদস্যে গত মেয়াদের সময় গত চার বছর আগে উক্ত বৃদ্ধ বয়স্ক ভাতা একটি কার্ডের জন্য আবেদন করেন। আবেদনের প্রেক্ষিেত বৃদ্ধ বাচ্চু মামুদের নিকট ৫ হাজার টাকা উৎকোচ গ্রহন করে উক্ত ইউপি সদস্য।যদিও বা বৃদ্ধ এমনিতেই বয়স্ক ভাতা কার্ড পাবার যোগ্য।

কিন্তু দীর্ঘদিনেও তিনি ওই বৃদ্ধকে বয়স্ক ভাতার কার্ড তো প্রদান করেইনি,উল্টো বৃদ্ধ কার্ডের কথা বলতে গেলেই ইউপি সদস্য নানান রকম হুমকি-ধামকিও দিতেন। গত বৃহস্পতিবার (১১ নভেম্বর) বিকালে ইউপি সদস্যের দেখা পেয়ে বয়স্ক ভাতার কার্ডের উৎকোচের ৫ হাজার টাকা ফেরত চান। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ওই ইউপি সদস্য লুৎফর রহমান বৃদ্ধকে প্রকাশ্যে থাপ্পর মারে। থাপ্পরে বৃদ্ধ বাচ্চু মিয়া মাটিতে লুটিয়ে পড়লে উপস্থিত লোকজন তাকে উদ্ধার করে তার বাড়িতে পৌছে দেয়।ইউপি সদস্যের থাপ্পরে ওই বৃদ্ধ তার বাম কানে প্রচন্ড আঘাত পেয়েছেন।

কিশোরীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এস এম মেহেদী হাসান দায়সারা ভাবেই জানান, ওই বৃদ্ধ লিখিত অভিযোগ দিয়েছে। ঘটনাটি তদন্ত করে দেখা হবে।আর কিশোরীগঞ্জ থানার ওসি বজলুর রশীদ জানিয়েছেন,বৃদ্ধের লিখিত অভিযোগটি তদন্ত করে উক্ত ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

মহিনুল ইসলাম সুজন-নীলফামারী।।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।