হাটহাজারীতে কলেজ অধ্যক্ষকে প্রহার করার বিষয়ে মডেল থানায় মামলা দায়ের

একে.এম নাজিম, হাটহাজারীঃ হাটহাজারী গার্লস স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ আলী আহম্মদকে প্রহৃত ও লাঞ্ছিতকারীদের বিরুদ্ধে হাটহাজারী মডেল থানায় মামলা দায়ের করেছে। গত বুধবার দিবাগত রাতে অধ্যক্ষ বাদী হয়ে থানায় এ মামলা (নং-১৩, তাং-১৬/১১/১৬) দায়ের করেন। এদিকে গতকাল বৃহস্পতিবার বিকাল সাড়ে ৫টায় বাশিস (বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতি) হাটহাজারী উপজেলা শিক্ষক সমিতির উদ্যোগে একটি প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

মামলার বিবরণে জানা যায়, গত ১৪ নভেম্বর দুপুরে শাওন তার সহযোগীদের নিয়ে আমার অফিসে প্রবেশ করে এসএসসি পরীক্ষায় অকৃতকার্য এক শিক্ষার্থীর ফরম পূরণের জন্য চাপ সৃষ্টি করে। এ সময় আমি অপারগতা প্রকাশ করলে তখন তারা আমাকে গাল-মন্দ করে এবং দেখে নেওয়ার হুমকি প্রদান করে। এর মধ্যে গত বুধবার দুপুর দেড়টায় চলমান জেএসসি পরীক্ষা শেষে আমি কলেজ থেকে উপজেলা সম্মুখস্থ ফটক বাসযোগে রাঙ্গুনিয়া গ্রামের বাড়িতে যাওয়ার পথে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে একটি কমউনিটি সেন্টারের পূর্ব পার্শ্বে বাসের গতি রোধ করে শাওন ও তার সহযোগীরা আমাকে জোর পূর্বক নামিয়ে কিল-ঘুষি মেরে শরীরের বিভিন্ন স্থানে জখম করে।

এ ঘটনা অধ্যক্ষ আলী আহম্মদের দায়ের করা মামলায় শাওন সহ সুনিদিষ্ট করে আসামী করা হয়েছে হাটহাজারী পৌরসভার পশ্চিম দেওয়ান নগর এলাকার জামাল উদ্দিনের পুত্র মো. ইশতিহাক ও অজ্ঞাতনামা আরো ৪/৫ জনকে।

উল্লেখ্য যে, থানায় মামলা দায়ের পরও এখন পর্যন্ত পুলিশ ঘটনার সাথে জড়িত কাউকে আটক করতে পারেনি। তবে এখনও হামলা কারিদের আটকের জন্য পুলিশি অভিযান অব্যাহত রেখেছে বলে দাবী করেন হাটহাজারী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ বেলাল উদ্দিন জাহাংগীর।
এদিকে হাটহাজারী উপজেলা শিক্ষক সমিতির উদ্যোগে বিকাল সাড়ে ৫টায় হাটহাজারী পার্বতী উচ্চ বিদ্যালয়ে এক প্রতিবাদ সভার অনুষ্ঠিত হয়। বাশিস হাটহাজারী উপজেলা শাখার সভাপতি ও নাজিরহাট কলেজিয়েট উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. এমরান হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত প্রতিবাদ সভায় আঞ্চলিক, জেলা ও উপজেলার নেতৃবৃন্দরা ন্যাকারজনক এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করে দোষী ব্যক্তিদের গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবী করেন। অন্যথায় শিক্ষক নেতৃবৃন্দরা প্রয়োজনে কঠোর কর্মসূচির হুমকি দেন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।