শাহরাস্তি প্রতিনিধি সাংবাদিক জসিম উদ্দিন কে ১০ ঘন্টা আটক রেখে গুরুতর আহত করার অভিযোগ

চাঁদপুর জেলা প্রতিনিধি :
দৈনিক ইত্তেফাকের শাহরাস্তি প্রতিনিধি ও দেশ কন্ঠের সহ-সম্পাদক সাংবাদিক জসিম উদ্দিন কে ১০ ঘন্টা আটক রেখে গুরুতর আহত করার অভিযোগ উঠেছে । আহত সাংবাদিক জসিম উদ্দিন কে দেখতে হাসপাতালে ছুটে আসেন শাহরাস্তি উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ও উপজেলা জামায়াত ইসলামীর আমীর মাওলানা আবুল হোসাইন। উল্লেখ্য গত ৬ তারিখ রাতে দৈনিক
ইত্তেফাকের উপজেলা প্রতিনিধি ওদেশ কন্ঠের সহ-সম্পাদক সাংবাদিক মোঃ জসিম উদ্দিন কে আটক করে রাতভর প্রহার করেছে সূচীপাড়া উত্তর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের নেতা ও ভাই
ভাই ব্রিকফিল্ডের স্বত্তাধীকারী মোঃ মিজানুর রহমান ও তার সঙ্গীরা।

জানা যায়, গত শুক্রবার আনুমানিক রাত ১২ টা সাংবাদিক জসিম উদ্দিন ও তার সহযোগি রাসেল সহ বাড়ি ফেরার পথে সূচীপাড় উত্তর ইউনিয়নের ভাই ভাই ব্রিক ফিল্ডের সামনে সড়কের উপর ব্রিক
ফিল্ডে কর্মরত মাজি মোঃ নুরুল ইসলাম মিরাজ মদ খেয়ে মাতলামি করা অবস্থায়
সাংবাদিক জসিম উদ্দিন তাকে সর্তক করে এক পর্যায়ে তার মাতলামির মাত্রা আরো বেড়ে গেলে সাংবাদিকের সহযোগি মোঃ রাসেল শাহরাস্তি মডেল থানাকে অবহিত করলে কিছুক্ষন পরে শাহরাস্তি মডেল থানার উপ-পরিদর্শক সমীর মজুদারের সঙ্গীয় ফোর্স এসে মাদক সেবন কারি মাজি নুরুল ইসলাম মিরাজ
কে আটক করে থানা নিয়ে যায়। এরপর সাংবাদিক জসিম ও তার সহযোগি ঘটনার
স্থল ত্যাগ করে বাড়ি ফেরার সময় ব্রিক
ফিল্ডের কয়েক জন কর্মচারি তাকে
এখানে অবস্থান করার জন্য বলে।
কিছুক্ষন পর ব্রিক ফিল্ডের মালিক মিজানুর
রহমান ঘটনাস্থলে পৌছে সাংবাদকি জসিম
উদ্দিনকে আটক কৃত ব্রিক ফিল্ড
কর্মচারিকে নুরুল ইসলাম মিরাজকে থানা
থেকে ছাড়িয়ে আনতে বলে। এ
বিষয়ে সাংবাদিক জসিম অস্কৃতি জানালে
তাৎক্ষনিক মিজান সহ ব্রিক ফিল্ড
কর্মচারীরা তাকে মারধর করতে শুরু
করে। এক পর্যায়ে তারা সাংবাদিক জসিম
কে একটি কক্ষে আটক রেখে
বেদম মারধর করে । তারা সাংবাদিক
জসিমকে ইট তৈরি চুলায় পুড়িয়ে ফেলে
দেওয়ার জন্য নিয়ে যায়।
এসময় থানায় মাজি নুরুল ইসলাম আটক
হওয়ার কারণে সাংবাদিক জসিমকে
আগুনে না ফেলে হাতুড়ি দিয়ে
শরীরে বিভিন্ন জায়গা আঘাত করে । এ
ঘটনা চলা অবস্থায় সাংবাদিক জসিমের
সহযোগি রাসেল পালিয়ে গিয়ে
জীবন রক্ষা করে। সাংবাদিক জসিম জানায়
অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ
আশ্রাফুজ্জামানের নির্দেশে ও
শাহরাস্তি থানা পুলিশ ও সাংবাদকি ঘটনাস্থলে
গিয়ে গতকাল শনিবার সকাল ১১ টায় তাকে
উদ্ধার করে শাহরাস্তি স্বাস্থ্য
কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। বর্তমানে
তিনি চিকিৎসাধীন অবস্থায়ে
রয়েছেন। বিষয়টি কেন্দ্র করে
শাহরাস্তি উপজেলা জুড়ে তোলপাড়
সৃষ্টি হয়েছে।এ রির্পোট লেখা
পর্যন্ত উক্ত বিষয়টি ধামা চাপা দিতে একটি
মহল জোড় তদবির চালাচ্ছে।
এ বিষয়ে কান্না জড়িত কন্ঠে সাংবাদকি জসিম
উদ্দিন জানান, তারা তার উপর রাতভর অমানুষিক
নির্যাতন চালায়। তারা আমাকে মেরে
ফেলে ৫০ লক্ষ টাকা জরিমানা দিবে
বলে হুমকি দেয়। জসিম আরো জানায়
আমার মা বর্তমানে ঢাকা ফিজি হাসপাতালে
চিকিৎসাধীর রয়েছে। মায়ের চিকিৎসার
টাকা সংগ্রহ করে বাড়ি ফেরার পথে উক্ত
ঘটনাটি ঘটে । তার সাথে থাকা তার ব্যবহারিত
মোটর সাইকেল,নগদ ১৭ হাজার টাকা,
পেশাগত দায়িত্বের নিয়োচিত ক্যামরা, ২
টি মোবাইল সেট তারা নিয়ে যায়।
উল্লেখ্য গত ইউপি নির্বাচনে দলীয়
সিদ্ধান্তের বাহিরে নির্বাচন করায় মোঃ
মিজানুর রহমানকে ইউনিয়ন
আওয়ামীলীগগের সাধারণ সম্পাদকের
পদ থেকে বহিস্কার করা হয়।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।