হিলারিকে জেতাতে মাঠে নেমেছেন বাংলাদেশিরা

ইমিগ্র্যান্ট বা অভিবাসী কমিউনিটির স্বার্থেই হিলারির বিজয় নিশ্চিত করতে হবে। এজন্য কেবল নিউইয়র্ক নয়, পুরো যুক্তরাষ্ট্রের বাংলাদেশি কমিউনিটিকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে হবে। এমন আহ্বান জানিয়েছেন বাংলাদেশি-আমেরিকানরা।
সাবেক সেক্রেটারি অব স্টেট হিলারি ক্লিনটনের পক্ষে জোর প্রচারণার ধারাবাহিক কর্মসূচির অংশ হিসেবেই আয়োজিত এক র‌্যালি পূর্ব সমাবেশে এ আহ্বান জানান বাংলাদেশি-আমেরিকানরা। ‘মুসলিম আমেরিকান র‌্যালি ফর হিলারি’ এ ব্যানারে বাংলাদেশি অধ্যুষিত জ্যাকসন হাইটসের একটি সমাবেশে অংশ নেন নিউইয়র্ক সিটির বাংলাদেশি-আমেরিকান, মূলধারার রাজনীতিবিদসহ কমিউনিটি নেতারা।

এবারের যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে মোট মুসলিম ভোটার আছেন ৩৩ লাখ। এদের সিংহভাগ আরব দেশ, পাকিস্তান আর ভারতীয় মুসলিম। বাংলাদেশিদের মধ্যে ভোটার আছেন ৩ থেকে সাড়ে ৩ লাখ। এদের প্রায় ৯০ শতাংশ হিলারির সমর্থনে প্রকাশ্যে মাঠে কাজ করছেন। সেই কাজের অংশ হিসেবেই জ্যাকসন হাইটসে জড়ো হন বেশ কিছু মানুষ।

জ্যাকসন হাইটসের ডাইভারসিটি প্লাজার এই আড্ডাখানার অনুষ্ঠানে রোববার যোগ দিতে নিউইয়র্ক সিটির বিভিন্ন অঞ্চল থেকে ছুটে আসেন মুসলিম-আমেরিকান ও বাংলাদেশি কমিউনিটির নেতারা। ‘মুসলিম আমেরিকান র‌্যালি ফর হিলারি’ এই শ্লোগানকে সামনে রেখেই আগামী ৮ নভেম্বর প্রেসিডেনশিয়াল নির্বাচনে ডেমোক্রেট প্রার্থী হিলারি ক্লিনটনের বিজয় সুনিশ্চিত করতে যে যার অবস্থান থেকে ভোটাধিকার প্রয়োগসহ প্রচার-প্রচারণায় অংশ নিতে আহ্বান জানান আয়োজকরা।

এই র‌্যালির আয়োজকরা ছিলেন মূলত এখানকার বিভিন্ন মানবাধিকার কর্মী, কমিউনিটি নেতা, ডেমোক্রেট রাজনীতির সঙ্গে সংশ্লিষ্ট পরিচিত মুখ আর জ্যাকসন হাইটস বাংলাদেশি বিজনেস এসোসিয়েশনের নেতারা। কেবল নিউইয়র্ক নয়, বাংলাদেশি ও ইমিগ্র্যান্ট কমিউনিটিনির্ভর বিভিন্ন স্টেট থেকে জ্যাকসন হাইটসের এ সমাবেশে অংশ নেন মূলধারার রাজনৈতিকসহ নিবন্ধিত ডেমোক্রেট নেতারা। এসময়ে তারা ঘরে বসে আলোচনা না করে মাঠে সরব উপস্থিতি ও ভোটাধিকার প্রয়োগে অভিবাসীদের প্রতি আহ্বান জানান।

র‌্যালির আগে এ সমাবেশে রিপাবলিকান প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্পকে একজন হিংসা ছড়ানো প্রার্থী আখ্যা দিয়ে জাতিকে বিভক্তকারী ট্রাম্প প্রতিরোধে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে হিলারির পক্ষে কাজ করার অঙ্গীকার করেন তারা।

যুক্তরাষ্ট্রের রাজনীতিতে হিলারিকে একজন দক্ষ ও জনবান্ধব রাজনীতিক আখ্যা দিয়ে ট্রাম্পের মতো অযোগ্য, বর্ণবাদ ও মুসিলম বিদ্বেষী প্রার্থীকে আমেরিকান উদারপন্থী জনগণ কখনোই মেনে নেবে না বলে বিশ্বাস অনেকের।

পরিবর্তন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।