কারচুপির মাধ্যমে হিলারিকে রক্ষা করা হয়েছেঃ ট্রাম্প

নির্বাচনের ঠিক আগের মুহূর্তে মার্কিন তদন্ত সংস্থা এফবিআই যখন হিলারির ই-মেইল নিয়ে আবার তদন্ত শুরু করলো তাতেই ধস পড়ে গেলো হিলারির জনপ্রিয়তায়। এতে ট্রাম্প শিবির বেজায় খুশি হয়ে হিলারির ই-মেইল তদন্তকেই অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করছিলেন তারা। কিন্তু এবার ট্রাম্প মার্কিন সিস্টেমের উপর আবার খেপেছেন। কারণ এফবিআই নির্বাচনের দুই দিন আগে হিলারিতে সকল তদন্ত থেকে নির্দোষ বলে অব্যাহতি দিয়েছে।

এই ঘোষণার এক ঘণ্টা পরই রোববার ট্রাম্প বলেছেন, কারচুপির মাধ্যমে হিলারিকে রক্ষা করা হয়েছে। মার্কিন শাসন ব্যবস্থার সমালোচনা করেন ট্রাম্প। খবর বিজনেস ইনসাইডারের।

রিপাবলিকান দলের এই সমালোচিত প্রেসিডেন্ট প্রার্থী মিনেসোটার এক র‍্যালিতে এই মন্তব্য করেন।

এফবিআইয়ের ডিরেক্ট জেমস কোমি রোববার বলেন, আমাদের দল নির্বাচনের আগে দ্রুত হিলারির নতুন ই-মেইল গুলো তদন্ত করে দেখেছি। পররাষ্ট্রমন্ত্রী থাকার সময় পাঠানো ই-মেইল গুলোতে আমরা সন্দেহজনক কিছু পাই নি তাই আমরা জুলাই মাসে হিলারি ক্লিনটনকে নির্দোষ বলে সে সিদ্ধান্তে পৌঁছেছিলাম তাতেই হিলারির প্রতি শ্রদ্ধার সাথে আবারও একমত হচ্ছি। কোমি কংগ্রেসকে এই বিবৃতি লিখে পাঠান।

যদিও ট্রাম্প কোমির তদন্তের পদ্ধতি নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেন।

ট্রাম্প বলেন, আপনি নিশ্চয়ই ৬ লাখ ৫০ হাজার মেইল ৮ দিনে দেখে শেষ করতে পারবেন না। তিনি জোরালো দাবি করে বলেন, আপনি এটা করতে পারেন না। হিলারি দোষী। সে তা জানে, এফবিআইও তা জানে, এমনকি দেশের মানুষও তা জানে।

হিলারিকে তাই উপযুক্ত শাস্তি দেয়ার দায়িত্ব ট্রাম্প দেশের নাগরিকের হাতে তুলে দেন। তিনি মার্কিন নাগরিককে ভোটের মাধ্যমে জবার দিতে বলেন।

উল্লেখ্য, ৮ ই নভেম্বর বাংলাদেশ সময় বেলা ৫টায় শুরু হবে মার্কিন নির্বাচন।

purboposhchimbd

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।