ফার্স্ট লেডি হলে নগ্ন হবো – ট্রাম্পের স্ত্রী!

স্বামী জিতলে স্ট্রিপ টিজ নাচবেন বলে কথা দিলেন মেলানিয়া ট্রাম্প। আমেরিকার প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী ধনকুবের ডোনাল্ড ট্রাম্পের সুন্দরী স্ত্রীর এই অঙ্গীকারে উচ্ছ্বসিত ভক্তরা, বাকরুদ্ধ রাজনৈতিক মহল। জন্মসূত্রে স্লোভেনীয়, প্রাক্তন মডেল মেলানিয়ার শরীরি আবেদনে একদা মজেছিল গোটা বিশ্ব। ক্যামেরার সামনে খোলামেলা পোশাকে যথেষ্ট সাহসী ও সাবলীল হিসেবে পরিচিত ছিলেন ট্রাম্প-পত্নী। সে সব বছর ১৫ আগের কথা। তবে দেড় দশক পরেও সেই ঐশ্বর্যে মুগ্ধ হয় জনতা। আর সেটা জেনেই মোক্ষম চাল দিয়েছেন মেলানিয়া।

আমেরিকার পরবর্তী প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী হিসেবে স্বামী ডোনাল্ডের প্রচারে নিজের শরীর উন্মোচনের টোপ দিলেন সুন্দরী। জানালেন, ডোনাল্ড প্রেসিডেন্ট হলে ভক্তদের তৃষ্ণা মেটাতে মোহিনী স্ট্রিপ টিজ নাচবেন। কমিউনিস্ট পরিবারের আদর্শ লালিত পরিবেশে মানুষ হওয়ার পর আমেরিকায় এসে ফ্যাশন দুনিয়ায় বিস্ফোরণ ঘটান মেলানিয়া। ২০০০ সালে এক পত্রিকায় তাঁর নগ্ন ছবি মার্কিন মিডিয়া তোলপাড় করেছিল। সেই সময় শিল্পপতি ধনকুবের ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে চুটিয়ে প্রেম করছিলেন তিনি। ট্রাম্পের প্রাইভেট জেটেই ক্যামেরার সামনে শরীরী বিভঙ্গ মেলে ধরেন মেলানিয়া। সাম্প্রতিক নির্বাচনী প্রচারে মেলানিয়া ট্রাম্পের সেই ছবিই ব্যবহার করছে বিরোধী টেড ক্রুজ শিবির। নগ্ন ছবির নীচে ক্যাপশন পড়ছে, আসুন পরিচয় করিয়ে দিই আপনাদের পরবর্তী ফার্স্ট লেডি মেলানিয়া ট্রাম্পের সঙ্গে। বা আপনারা টেড ক্রুজকেও ভোট দিতে পারেন। তবে সে সব নিয়ে ট্রাম্প শিবিরের আদৌ কিছু যায় আসে না। হবু ফার্স্ট লেডির অতীত যে কোনও ভাবেই ডোনাল্ড ট্রাম্পের ভাবমূর্তি নষ্ট করবে না, দলীয় প্রচারে সে কথা পই পই করে বলছেন ডোনাল্ড ও তাঁর সমর্থকরা। পাশাপাশি, মেলানিয়াকে একজন সহজ-সরল আড্ডাবাজ মহিলা হিসেবে তুলে ধরার চেষ্টা দেখা যাচ্ছে।

kalerkantho

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।