প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের উত্তাল বিক্ষোভ রূপ নিচ্ছে দাঙ্গায়

প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের পর দ্বিতীয় রাতের মতো ট্রাম্পবিরোধী বিক্ষোভে উত্তাল হয়ে উঠেছে যুক্তরাষ্ট্র। দেশটির ২৫টিরও বেশি শহরে বিক্ষোভে হাজার হাজার মানুষ অংশ নিয়েছে। বিক্ষোভ ধীরে ধীরে সহিংস আকার ধারণ করছে; বিক্ষোভ থেকে পুলিশের ওপর হামলা, গাড়ি ভাঙচুর ও অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। পুলিশ বলছে, সহিংস বিক্ষোভকে দাঙ্গা হিসেবে বিবেচনা করা উচিত।

সবচেয়ে সহিংস বিক্ষোভের ঘটনা ঘটেছে দেশটির ওরিগনের পোর্টল্যান্ড শহরে। সেখানে পুলিশকে লক্ষ্য করে প্রজেক্টাইল মিসাইল নিক্ষেপ করেছে বিক্ষোভকারীরা।

ওরিগন পুলিশ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে দেয়া এক টুইটে বলেছে, বিক্ষোভকারীরা ব্যাপক অপরাধ ও বিপজ্জনক আচরণ প্রদর্শন করছেন। এটিকে দাঙ্গা হিসেবে বিবেচনা করা উচিত। টুইটে পুলিশের ওপর প্রজেক্টাইল মিসাইল নিক্ষেপ ও গাড়ি ভাঙচুরের তথ্য নিশ্চিত করা হয়েছে।
মঙ্গলবারের নির্বাচনের পর বৃহস্পতিবার রাতেও বিক্ষোভ অব্যাহত রাখে বিরোধীরা। যুক্তরাষ্ট্রের লস অ্যাঞ্জেলস, ফিলাডেলফিয়া, ডেনেভার, মিনেপোলিস, অকল্যান্ড, ক্যালিফোর্নিয়াসহ ২৫টিরও বেশি শহরে বিক্ষোভ চলছে।

ওরিগনের পোর্টল্যান্ড পুলিশ বিক্ষোভ থেকে বেশ কয়েকজনকে আটক করেছে বলে স্থানীয় গণমাধ্যমের খবরে জানানো হয়েছে। এছাড়া শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভকারীদের শহরের পাইওনিয়ার কোর্টহাউস স্কয়ারের দিকে যাওয়ার নির্দেশ দিয়েছে পুলিশ।
এদিকে, বিক্ষোভকারীদের নিন্দা জানিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে দেয়া এক টুইটে সদ্যনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, মাত্র একটি সফল এবং খোলামেলা নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে। এখন পেশাদার প্রতিবাদকারীরা মিডিয়ার মাধ্যমে প্ররোচিত হয়েছে প্রতিবাদ করতে। এটি খুবই অন্যায্য।

এর আগে, বৃহস্পতিবার স্থানীয় সময় সকালে হোয়াইট হাউসে প্রথমবারের মতো সাক্ষাৎ করেন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা ও সদ্যনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এ সময় ওবামাকে ‘খুব ভালো মানুষ’ হিসেবে আখ্যায়িত করেন নবনির্বাচিত এ প্রেসিডেন্ট।

jagonews24.com

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।