ছায়েদুল মালাউন বলতে পারেন না: স্থানীয় হিন্দু সম্প্রদায়

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদমন্ত্রী ছায়েদুল হকের একটি বক্তব্যকে ঘিরে সারাদেশে ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনার সৃষ্টি হয়েছে। এর আগে মন্ত্রী বিষয়টি অস্বীকার করলেও আজ সংবাদ সম্মেলনে এ নিয়ে কথা বলেন স্থানীয় হিন্দু সম্প্রদারের নেতারা। আজ রবিবার দুপুরে সংবাদ সম্মেলনে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগরের স্থানীয় হিন্দু সম্প্রদায়ের নেতারা বলেন, জনগণের ভোটে ছয় বারের নির্বাচিত এমপি ছায়েদুল একথা বলতে পারেন না।

স্থানীয় প্রেসক্লাবে হিন্দু সম্প্রদায়ের পক্ষ থেকে সংবাদ সম্মেলনে দাবি করা হয়- ছায়েদুল দীর্ঘদিন ধরে এই এলাকায় রাজনীতি করছেন। এলাকায় তিনি খুবই জনপ্রিয় নেতা। সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের নিরাপত্তায় তিন সবসময় সতর্ক। সব সময় আমাদের নিরাপত্তা দিয়েছেন। সংখ্যালঘু তথা হিন্দু সম্প্রদায়ের সুখে-দুঃখে সব সময় পাশে ছিলেন। অথচ নাসিরনগরে হিন্দু সম্প্রদায়ের বাড়িঘরে হামলার ঘটনায় তাকে নিয়ে কিছু উদ্ভট বক্তব্য প্রচার করা হচ্ছে। যার সঙ্গে তাঁর বক্তব্যের কোনো মিল নেই। তিনি কোনোভাবেই হিন্দুদের মালাউন বলতে পারেন না, বলেনও নি। একটি কুচক্রী মহল মন্ত্রী ছায়েদুলের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে স্থানীয় হিন্দু সম্প্রদায়ের নেতারা বলেন, ‘এলাকায় তিনি খুবই জনপ্রিয়। মানবাধিকার রক্ষায় সবসময় সচেষ্ট। এরআগে সংখ্যালঘুদের প্রয়োজনে সবসময় তিনি পাশে ছিলেন। নাসিরনগরে হামলার ঘটনার বিচার বিভাগীয় তদন্তের দাবি করে হিন্দু সম্প্রদায়ের নেতারা বলেন, ‘এই ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত করে দোষীদের শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে।’ এক হিন্দু যুবকের ফেইসবুক পাতায় ইসলাম অবমাননার অভিযোগ তুলে গত ৩০ অক্টোবর ১৫টি মন্দির এবং হিন্দু সম্প্রদায়ের দেড় শতাধিক ঘর ভাংচুর ও লুটপাট হয়। এই সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাসের পর দুই দিনেও ছায়েদুল হক এলাকায় না যাওয়ায় সমালোচিত হচ্ছিলেন। গত বৃহস্পতিবার এলাকায় গিয়ে তিনি ঘটনাটি অতিরঞ্জিত বলার পর নতুন করে সমালোচিত হন।

ঢাকাটাইমস

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।