৭ নভেম্বরঃ জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস না ‘সৈনিক হত্যা দিবস

আজ ৭ নভেম্বর। ঘটনাবহুল একটি দিন। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যার মধ্য দিয়ে ক্ষমতার পটপরিবর্তন ঘটে। ওই ঘটনার আড়াই মাস পর সেনাবাহিনীতে শুরু হয় অভ্যুত্থান ও পাল্টা অভ্যুত্থান।

৩ নভেম্বর কারাগারে বন্দি অবস্থায় নিহত হন জাতীয় চার নেতা। এর একপর্যায়ে তৎকালীন সেনাপ্রধান মেজর জেনারেল জিয়াউর রহমান বন্দি হন। ৭ নভেম্বর অপর এক অভ্যুত্থানে মুক্ত হন তিনি। ব্রিগেডিয়ার খালেদ মোশাররফ, কর্নেল এটিএম হায়দারসহ কয়েকজন মুক্তিযোদ্ধা সেনা কর্মকর্তা সেদিন নিহত হন।

বিএনপি দিনটিকে ‘জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস’হিসেবে পালন করলেও মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তি দিবসটি মুক্তিযোদ্ধা সৈনিক হত্যা দিবস হিসেবে পালন করে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।