সংখ্যালঘু নির্যাতন এবং আওয়ামীলীগের দোষারোপের রাজনীতি

২০১৪ সালে সাতক্ষীরায় যখন সংখ্যালঘুদের উপর হামলা হয়েছিলো তখন আমরা বলেছিলাম এই হামলা সরকারী নেতা কর্মীদের হস্তক্ষেপে হয়েছে কিন্তু আপনারা আমাদের দিকেই আঙ্গুল তুলেছিলেন ।

২২ ডিসেম্বর ২০১৪ নান্দাইল, ময়মনসিংহের সিংপাড়া গ্রামের রবীন্দ্র সিংয়ের পরিবারকে এলাকা ছেড়ে চলে যেতে বলা হয় গ্রামের পঞ্চায়েতের বিচারে । তখন আমরা বলেছিলাম পঞ্চায়েতে নেতৃত্ব দেওয়া উপজেলার আওয়ামীলীগের নেতারা আপনাদের উপর অবিচার করেছে কিন্তু আপনারা শুনেননি , আপনারা আমাদের দিকেই আঙ্গুল তুলেছিলেন ।

২ জানুয়ারি,২০১৫ যখন গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়ায় পূর্বপাড়া সার্বজনীন কালীমন্দিরে পূজাচলাকালীন সময়ে বিকট শব্দে বোমার বিস্ফোরণ ঘটে পুরো এলাকা কেঁপে উঠে তখন আমরা বলেছিলাম প্রধানমন্ত্রীর নিজস্ব জেলায় অন্য কারো সাহস নেই এভাবে বোমা হামলা করার কিন্তু আপনারা আমাদের কথা না শুনে আমাদের দিকেই আঙ্গুল তুলেছিলেন ।

১০ জানুয়ারি ২০১৫ উখিয়া, কক্সবাজারের নাইক্ষ্যংছড়ির ঘুমধুমে সংখ্যালঘু বড়ূয়াদের অর্ধশতাধিক ৫২ পরিবারকে উচ্ছেদ করে জায়গা দখল করে নেয় আওয়ামীলীগের স্থানীয় নেতা । সবকিছু জেনেও আপনারা আমাদের দিকেই আঙ্গুল তুলেছিলেন ।
২৪ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৫ এর নিউজ – যশোর চুড়ামন কাঠি ইউপি সদস্য ও স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা মোস্তফা ও তার বাহিনীর অত্যাচার, নিপীড়ন এবং চাঁদাবাজির কাছে জিম্মি জীবন যাপন করছে ১১৬টি হিন্দু পরিবার। তারা যাকে খুশী তাকে ধরে আটকে রেখে নির্যাতন চালায়, ঘেরের মাছ লুটে নেয়, চাঁদাবাজি করে এভাবে জিম্মি হয়ে আছে ৪০০জন মানুষ। এই ঘটনায় ও আপনারা আমাদের দিকেই আঙ্গুল তুলেছিলেন ।

কিছুদিন আগে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের দলীয় বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষকে বেকায়দায় ফেলতে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সভাপতি সাংসদ র আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরীর সমর্থকরা নাসিরনগরে হিন্দুদের বাড়ি-মন্দিরে হামলার নেপথ্যে ছিলেন স্থানীয় নেতাকর্মীরা। অথচ এই তো সেদিনও আপনারা আমাদের দিকেই আঙ্গুল তুলেছিলেন।
এই দেশে যতবারই সংখ্যালঘুদের উপর হামলা হয়েছিলো ঠিক ততবারই আমরা আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছিলাম কারা এ সকল হামলায় জড়িত, কিন্তু প্রতিবারই আপনারা সেই আঙ্গুলকে থামিয়ে দিয়ে বিএনপি জামায়াতের দিকে আঙ্গুল তুলেছিলেন । আমরা প্রতিবারই আপনাদেরকে হামলাকারীদের পরিচয় তুলে ধরি আর প্রতিবারই আপনারা আমাদের উপর দোষ চাপিয়ে গিয়েছেন ।

কার স্বার্থে কিসের স্বার্থে কোন উদ্দেশ্যে আপনারা সংখ্যালঘু নেতারা বারবার হামলাকারীদের জেনেও আমাদের দিকে আঙ্গুল তুলছেন তা আমাদের আর বুঝতে বাকি নেই । আপনারা সংখ্যালঘু নেতারা বিরাট অনুদান নিয়ে সাধারন সংখ্যালঘু মানুষগুলাকে ঠকানোর জন্যেই এসব নাটক সাজিয়ে বেড়াচ্ছেন । আপনারা সংখ্যালঘুর রাঘব বোয়ালরা একদিকে এই সরকারের সাথে মিলে মিশে হামলা করে তলে তলে ফায়দা লুটছেন অন্যদিকে কান্নাকাটি করে ভারত থেকে আবেগি অনুদান নিচ্ছেন । আর ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছে বরাবরই সাধারন ও গরীব সংখ্যালঘুরা ।

তৎকালীন মুসলিম লীগ থেকে শুরু করে সংখ্যালঘুদের বাড়ী ঘর দখল ও সংখ্যালঘুদের উপর সব ধরনের হামলাতেই বর্তমান অবৈধ সরকারের দল জড়িত । পূর্বেও তারাই আপনাদের উপর হামলা চালিয়েছিল বর্তমানেও তারাই আপনাদের উপর বেশী নির্যাতন করে , অথচ বারবার আপনারা সংখ্যালঘু নেতারা আমাদের দিকেই আঙ্গুল তুলেছেন ।
এ দেশে অসাম্প্রদায়িকতার স্লোগান তুলে আপনারাই বারবার সাম্প্রদায়িক দাঙ্গার উস্কানি দিচ্ছেন । যেদিন সত্যিই সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা শুরু হয়ে যাবে সেদিন আপনাদের আর পালানোর জায়গা খুজে পাবেন না । এমনকি আপনাদের দুনিয়াবি প্রভু মোদী’দাও আপনাদেরকে রক্ষা করতে পারবেনা ।

ফেসবুক থেকে নেয়া

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।