ফেসবুকে কে কোথায় কার ছবি দিলো, এটা নিয়ে আমি কখনোই তেমন কিছু লিখি না – ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রসঙ্গে

মুসলমানদের কাবা ঘরের ছবির উপর শিবের ছবি স্থাপন করে স্ট্যাটাস দিয়েছে রসরাজ দাস নামক নমশুদ্র হিন্দুত্ববাদী। এ ঘটনায় স্থানীয় মুসলমানরা ক্ষোভে ফেটে পড়ে এবং প্রতিবাদ দলে দলে রাস্তায় নেমে আসে আছে। এক পর্যায়ে তারা রসরাজ দাসকে ধরে গণধোলাই দিয়ে পুলিশের কাছে সোপর্দ করে।

এ প্রসঙ্গে ইমরান এইচ সরকার তার ফেইসবুকে বলেন ,ফেসবুকে কে কোথায় কার ছবি দিল, এটা নিয়ে আমি কখনোই তেমন কিছু লিখি না। লিখলে প্রতিদিন শত শত লেখা লিখতে হবে। আজ হিন্দুদের জায়গায় পৃথিবীর যেকোনো দেশে মুসলমানদের উপর আক্রমণ হলেও আমি একইভাবে প্রতিবাদ করতাম, প্রতিবাদ করি। আপনারা দেখেছেন আমি অন্যান্য ধর্মের মানুষের অধিকারের পক্ষে যেমন সোচ্চার, তেমনি মুসলমানদের উপর যেকোনো নিপীড়নের বিরুদ্ধেও সোচ্চার। প্যালেস্টাইন থেকে শুরু করে ইরাক, সিরিয়া, লিবিয়া, ইয়েমেনের নিরীহ মুসলমানদের পক্ষে প্রতিনিয়ত লড়াই করে যাচ্ছি। আমি মানুষের স্বাধীনতায় বিশ্বাস করি। প্রতিটি মানুষের তার মত, পথ ও ধর্ম পালনের স্বাধীনতা থাকতে হবে। এভাবে হত্যা করে, হামলা করে, নির্যাতন করে কোনো আদর্শ প্রতিষ্ঠা করা যায়না।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।