জামাতের উসকানিতে মন্দিরে ভাঙচুর – দাবি ভারতের

ধর্মনিরপেক্ষ ছবিতে ফের লাগল কালির দাগ৷ দীপাবলীতে আক্রান্ত বাংলাদেশের সংখ্যালঘু সমাজ৷ ঘটনাস্থল ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নাসিরনগর৷ এখানে কালী মন্দির ভাঙচুর ও কয়েকশো বাড়িতে হামলা চালানো হল৷ অপ্রীতিকর পরিস্থিতি রুখতে ঘটনাস্থলে মোতায়েন নিরপত্তারক্ষীরা৷ নামানো হয়েছে আধা সেনা৷ সংখ্যালঘু পাড়াগুলিতে ঢুকে লুঠপাট ও কালী মূর্তি ভেঙে দিয়েছে একটি ধর্মীয় সংগঠনের উত্তেজিত সদস্যরা৷ ফেসবুকে বাংলাদেশের সংখ্যাগুরু সমাজের পবিত্র স্থানকে নিয়ে একটি ব্যঙ্গচিত্র পোস্ট করা হয়৷ এরপরই উত্তেজনা বাড়তে থাকে৷ অভিযোগ, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগর নিবাসী রসরাজ দাস ওই পোস্ট করেন৷ তার শাস্তির দাবি জানায় বিভিন্ন ইসলামী সংগঠন৷ টায়ার জ্বালিয়ে রাস্তা অবরোধ করা হয়৷ আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়৷ এরপরই পুলিশ রসরাজকে আটক করে৷ তবে অভিযুক্তের দাবি, কেউ তার ফেসবুক হ্যাক করে এই উসকানি মূলক পোস্ট শেয়ার করেছে৷ পরে সেই পোস্ট মুছে দেন রসরাজ৷

রবিবার দুপরে ধর্মীয় সংগঠন ‘তৌহিদী জনতার’ উদ্যোগে একটি মিছিল বের হয়। ওই মিছিল থেকেই স্থানীয় ছয়টি কালী মন্দিরের প্রতিমা ভাঙচুর করা হয়। আক্রান্ত হয় সংখ্যালঘুদের পাড়া৷ ব্রাহ্মণবাড়িয়ার পুলিশ সুপার মহম্মদ মিজানুর রহমান জানিয়েছে, দেশীয় অস্ত্র নিয়ে হামলাকারীরা একের পর এক মন্দিরে ভাঙচুর চালায়৷ তাঁর দাবি, সরকারকে বিব্রত করতেই জামাত ইসলামি এই কাজ করেছে৷ ছয় হামলাকারীকে গ্রেফতার করা হয়েছে৷

kolkata24x7

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।