ফেসবুকে ঝড় তুলেছে নেপালের সবজিওয়ালি

নেপালের এক সবজি বিক্রেতা নারীকে নিয়ে আলোড়ন উঠেছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। সৌন্দর্য আর কঠোর পরিশ্রমের কারণে নাম প্রকাশ না পাওয়া ওই নারী এখন নেপাল ছাড়িয়ে অন্যান্য দেশেও আলোচনার কেন্দ্রে। কিছুদিন আগেই পাকিস্তানের ইসলামাবাদের নীল চোখের চা বিক্রেতা আরশাদ খানকে নিয়ে তোলপাড় হয়েছিল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।

সম্প্রতি নেপালি মেয়েটির সবজি বহন করা ও বাজারে বিক্রি করার ছবি ইন্টারনেটে ভাইরাল হয়ে পড়ে। টুইটারে মূলত পুরুষরাই ওই মেয়েকে নিয়ে আলোচনায় মেতেছেন বেশি, আর এর মূলে ছিল ওই মেয়ের সৌন্দর্য।

‘মিট দ্য#নেপালি #তরকারিওয়ালি’ হ্যাশট্যাগ দিয়ে নানা মন্তব্য করে টুইটার ব্যবহারকারীরা ইতোমধ্যে ওই মেয়েকে রীতিমত তারকা বানিয়ে দিয়েছেন। সব্যসাচী পুহান নামে একজন তাকে নিয়ে মন্তব্য করেছেন এভাবে- ‘সৌন্দর্য আর কঠিন পরিশ্রম এই দুটোর ফসল হলো নেপালের সবজিওয়ালি। সোশ্যাল মিডিয়ার খ্যাতি জিন্দাবাদ’।

দেশী বান্দা নামে আরেকজন টুইটারে লিখেন- ‘কদিন আগে ইন্টারনেটে হাজার হাজার মেয়ে পাকিস্তানের চা-ওয়ালাকে নিয়ে আলোড়ন তুলেছিল, এবার সময় ছেলেদের অপরূপ সৌন্দর্যের অধিকারী নেপালের এই সবজিওয়ালিকে নিয়ে ইন্টারনেটে আলোড়ন তোলার’।

এর আগে আলোচনায় আসা পাকিস্তানের চা বিক্রেতা আরশাদ খান এখন পোশাক মডেলও হয়ে গেছেন। আর এখন নেপালি সবজি বিক্রেতা মেয়ে আলোচনায় আসার পর অনেকেই প্রত্যাশা করছেন যে, এ পেশাগুলোকেও মানুষ সম্মান করতে শিখবে। কেউ কেউ আবার মজা করে চা বিক্রেতা ও সবজি বিক্রেতাকে বিয়ে দেওয়ারও পরামর্শ দিয়েছেন!

সূত্র : বিবিসি বাংলা

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।