‘আমি মালাউন বলছি’ ঢাবিতে ব্যতিক্রমী আয়োজন

ব্রাহ্মণবাড়ীয়ার নাসিরনগরে হিন্দু সম্প্রদায়ের ওপর হামলার প্রতিবাদে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাজেয় বাংলায় ‘আমি মালাউন বলছি’ শীর্ষক এক ব্যতিক্রমী প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হয়। এতে অংশগ্রহণ করে বিক্ষুব্ধ ও প্রতিবাদী শিক্ষক শিক্ষার্থীরা। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের থিয়েটার অ্যান্ড পারফরম্যান্স ষ্টাডিজ বিভাগ এ প্রদর্শনীর আয়োজন করে।

প্রথমে অংশগ্রহণকারীরা বটতলায় ছোট একটা কুয়া খনন করা হয়, সেখানে কালি মিশ্রিত পানি সারা শরীরে লাগানো হয়।তারপর তুলসী গাছ হাতে নিয়ে একটা মিছিল হয়।মিছিলটি অপারাজেয় বাংলা থেকে মধুর ক্যান্টিনের সামনে হয়ে কেন্দ্রীয় লাইব্রেরীর সামনে দিয়ে আবার অপারাজেয় বাংলায় আসে।এতে সাধারণ শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করে। এরপর ‘আমি মালাউন বলছি’ মহড়াটি শুরু হয়। মহড়াতে কিভাবে হিন্দুদের বাড়ীঘর হামলা হয়েছে তার দৃশ্য দেখানো হয়।এ সময় শত শত শিক্ষার্থী মহড়াটি দেখে।

নাসিরনগরে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের ওপর হামলা ও তাদের সম্পত্তি লুটের ঘটনা, রাষ্ট্র ও সমাজের অনৈতিক ক্রুটিপূর্ণ ও দূর্বল বিন্যাসকে সামনে নিয়ে আসে। নাসিরনগরে হিন্দু ধর্মাবলম্বী নর-নারী শিশু বৃদ্ধসহ আবহমান কাল ধরে বসবাসরত মানুষের ওপরে তাদের পবিত্র মন্দিরে, বাসস্থানে, তুলসিপাতার পূজার ঘটে, ভাতের থালায় সর্বোপরী মনুষত্বের মর্মস্থলে সাম্প্রদায়িক হামলা ও তাণ্ডবের বিরুদ্ধে এ পারফরম্যান্স মহড়াটি হয়।
এ পারফরম্যান্স মহড়ায় উপস্থিত ছিলেন বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক শিক্ষার্থীবৃন্দ।

thereport24

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।