উত্তর-দক্ষিণে ভাগ হলো ঢাকা মহানগর জামায়াত

ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের পথ ধরে এবার জামায়াতে ইসমামীও ঢাকা মহানগরী কমিটিকে দুই ভাগে ভাগ করেছে। ঢাকা মহানগর উত্তর ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণে নতুন আমির ও সেক্রেটারি নির্বাচনের শেষ দিন ছিল বৃহস্পতিবার। সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ শেষ হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাতেই পল্টন থানার ভারপ্রাপ্ত আমির ও মহানগরী শুরার সদস্য আমিনুল ইসলাম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এদিকে, জামায়াতের কেন্দ্রীয় একজন নায়েবে আমিরের সহচর এ সম্পর্কে জানান, ‘তথ্য সঠিক।’

ঢাকা মহানগর জামায়াতের একাধিক দায়িত্বশীল সদস্য জানান, গত মঙ্গলবার থেকে ঢাকা মহানগর আমির নির্বাচনে প্রক্রিয়া শুরু হয়। গোপনে নগরীর বিভিন্ন দলীয় লোকের অফিসে রুকনদের ভোট শেষ হয়। বৃহস্পতিবার রাত পৌনে এগারোটার দিকে শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ঢাকা মহানগর দক্ষিণে নুরুল ইসলাম বুলবুল আমির ও শফিকুল ইসলাম মাসুদ সেক্রেটারি নির্বাচিত হয়েছেন। ছাত্র শিবিরের সাবেক এই দুই সভাপতির প্রথম সদ্য সাবেক কমিটির সেক্রেটারি জেনারেল ও দ্বিতীয়জন সহকারী সেক্রেটারির দায়িত্ব পালন করেছেন। শফিকুল ইসলাম মাসুদ বর্তমানে কারাবন্দি।

সূত্রের দাবি, ঢাকা মহানগর দক্ষিণে প্রায় ১২ হাজার রুকনদের মধ্যে বুলবুল ও মাসুদের নামই তালিকার ওপরে ছিল। ক্রমানুসারে প্রথম দিকে সাধারণত সম্ভাব্য নির্বাচিতদের নাম থাকে। এক্ষেত্রে রুকন তালিকায় অ্যাডভোকেট হেলাল উদ্দিন ও লুৎফুর রহমানের নাম ছিল।

সূত্র জানায়, ঢাকা মহানগর উত্তরে আমির হিসেবে সেলিম উদ্দিন ও সেক্রেটারি হিসেবে রেজাউল করিম সম্ভাব্য নির্বাচিত হয়েছেন। এ দু’জনও ছাত্রশিবিরের সাবেক সভাপতি। মহানগর উত্তরের রুকন সংখ্যা এ রিপোর্ট লেখার সময় পর্যন্ত পাওয়া যায়নি। এ ব্যাপারে জানতে চাইলে রেজাউল করিম বলেন, ‘ভোট এখনও শেষ হয়নি। রেজাল্ট নিয়ে তো প্রশ্নই আসেনি।’

তবে জানতে চাইলে পল্টন থানার দায়িত্বশীল আহসান হাবিব ও থানা বায়তুল মাল সম্পাদক উমর ফারুক ‘সম্মতিসূচক ইঙ্গিত’ দিলেও তারা মন্তব্য করতে রাজি হননি।

জামায়াতের ঢাকা মহানগর সূত্র জানায়, অবিভক্ত ঢাকা মহানগরী কমিটির আমির রফিকুল ইসলাম খান নতুন মেয়াদে সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল হিসেবে নির্বাচিত হতে পারেন। একইভাবে নায়েবে আমির হামিদুর রহমান আযাদ সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল পদে নিয়োগ পেতে পারেন। তবে তারা দু’জনেই বর্তমানে জামায়াতের কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য হিসেবে রয়েছেন। এই কমিটির নায়েবে আমির মাওলানা আবদুল হালিমও কেন্দ্রীয় গুরুত্বপূর্ণ কোনও দায়িত্বে নিযুক্ত হবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে জামায়াতের কয়েকটি সূত্রে।

এ ব্যাপারে জানাতে চাইলে জামায়াতের কেন্দ্রীয় মজলিসে শুরার একজন সদস্য বলেন, নির্বাচন হয়েছে, এটা ঠিক। আমির-সেক্রেটারির চূড়ান্ত ফল আসেনি। এটি আনুষ্ঠানিকভাবে দুই মাস পরে জানানো হবে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।