৯ মাসে ৪৬৬ নারী-শিশু ধর্ষণের শিকার

চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত এই ৯ মাসে ৪৬৬ জন নারী ও শিশু ধর্ষণের শিকার হয়েছে বলে জানিয়েছে সমাজতান্ত্রিক মহিলা ফোরাম

শুক্রবার সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে সারাদেশে নারী ও শিশুদের ধর্ষণ ও হত্যার প্রতিবাদে এক সমাবেশে এ তথ্য তুলে ধরে সংগঠনটি।

সমাবেশে সংগঠনটির নেতারা বলেন, প্রতি মাসে ধর্ষণের শিকার হয়েছে ৫২ নারী ও শিশু। এসব ঘটনায় মামলা হয়েছে মাত্র ২৫০টি। শুধু অক্টোবরেই ধর্ষণের শিকার হয়েছেন ১১৫ নারী ও শিশু।

সমাবেশে বক্তার বলেন, সারাদেশে নারী ও শিশুদের ওপরে নির্যাতন, ধর্ষণ এবং হত্যা বেড়েই চলছে। এসব ঘটনা ঘটলেও দোষীদের বিচার এবং শাস্তি না হওয়ায় নারী নির্যাতনের ঘটনা আরও বেড়ে গেছে। এসব ঘটনার অধিকাংশ ক্ষেত্রেই দেখা যায় অপরাধীরা অর্থ ও ক্ষমতার দাপটে পার পেয়ে যাচ্ছে বলেও অভিযোগ করেছেন তারা।

তনু ও আফসানার হত্যাকারীদের বিচারের প্রসঙ্গ টেনে বক্তারা বলেন, তনুর হত্যাকারীরা ক্ষমতাধর তাই তার হত্যার ছয় মাস পার হলেও বিচার হচ্ছে না। আফসানার হত্যাকারীরা ছাত্রলীগ নেতা তাই সে গ্রেফ্তার হলো না। চাঁদনী দরিদ্র মানুষের সন্তান তাই তার হত্যা কারিদের বিচার হয় না , এই বিচারহীনতার রেওয়াজ দুর্বৃত্তদেরকেই প্রশ্রয় দেয়। দেশের মানুষ এই বিচারহীনতার অবসান চায়। ফলে, নারী ও শিশু নির্যাতন বন্ধে সরকারকে জিরো টলারেন্স ভূমিকা নিতে হবে এবং অপরাধীদের বিচার করতে হবে বলে জোর দাবি তোলেন তারা।

সমাজতান্ত্রিক মহিলা ফোরামের সাধারণ সম্পাদক শম্পা বসুর সভাপতিত্বে সমাবেশটি পরিচালনা করেন রুখসানা আফরোজ আশা। সভায় বিভিন্ন স্তরের নেতাকর্মীরা বক্তব্য রাখেন। সমাবেশ শেষে  প্রেসক্লাবের সামনে থেকে শুরু হওয়া একটি বিক্ষোভ মিছিল বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে আবারও প্রেসক্লাবের সামনে এসে শেষ হয়।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।