মোনাজাতের মাধ্যমে মূর্তি উদ্বোধন !

মঙ্গলবার রাজধানীর ফার্মগেটে বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা কাউন্সিল চত্বরে শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য উন্মোচন করা হয়েছে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল এতে প্র্রধান অতিথি ছিলেন।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু বহু আগেই বলেছিলেন, কৃষি বাঁচলে দেশ বাঁচবে। আর সেজন্যই তিনি কৃষক ও কৃষির উন্নয়নে নানা উদ্যোগ নিয়েছিলেন। কৃষির উন্নয়নে তিনি কৃষিবিদদের প্রথম শ্রেণির কর্মকর্তায় উন্নীত করেছিলেন।

প্রধান আলোচক ছিলেন কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী। তিনি বলেন, জাতির জনক উপলব্ধি করতে পেরেছিলেন কৃষক এবং কৃষিকে উন্নত করতে পারলেই জাতি উন্নত হবে। তাই বঙ্গবন্ধু কৃষিকে গৌরবের পেশা হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছিলেন। কৃষিকে যান্ত্রীকীকরণে প্রধানমন্ত্রী সব ধরনের সহযোগিতা করে যাচ্ছেন।

কৃষি মন্ত্রণালয়ের সচিব মোহাম্মদ মঈন উদ্দীন আবদুল্লার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান আলোচক হিসেবে বক্তব্য রাখেন কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন কৃষিবিদ আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম এবং কৃষি মন্ত্রণালয় বিষয়ক সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি কৃষিবিদ আব্দুল মান্নান এমপি।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা কাউন্সিলের নির্বাহী চেয়ারম্যান ড. আবুল কালাম আজাদ। আলোচনা শুরুর আগে বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা কাউন্সিল প্রাঙ্গণে শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য উন্মোচন করেন অতিথিরা। এসময় একজন আলেমের মাধ্যমে মোনাজাত করা হয়।

এদিকে মূর্তি ইসলামের মৌলিক ধারণা পরিপন্থী হওয়ায় তা উদ্বোধনের সময় ইসলামী রীতিতে মোনাজাত করার ঘটনায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে সামাজিক মাধ্যমে। অনেকে এটিকে ইসলাম অবমাননা হিসেবে আখ্যায়িত করছেন। তাদের মতে, কথিত সেকুলাররা ইসলাম বিদ্বেষী বিষয়াদির সাথে দোয়া-মোনাজাতকে যুক্ত করে প্রকৃত অর্থে ইসলামকে ব্যঙ্গ করতে চায়।

Leave a Reply