কণ্ঠশিল্পী সালমা ও সাংসদ শিবলী সাদিকের মধ্যে ডিভোর্স হয়ে গেছে !

কণ্ঠশিল্পী মৌসুমী আক্তার সালমা ও সাংসদ শিবলী সাদিকের মধ্যে ডিভোর্স হয়ে গেছে। গত ২০ নভেম্বর রাজধানীর ধানমন্ডি এলাকার একটি রেস্তোরাঁয় দুই পরিবারের উপস্থিতিতে তালাকের কার্য সম্পন্ন হয়েছে বলে জানা গেছে।

ফোক গায়িকা সালমা এনটিভির রিয়েলিটি শো ‘ক্লোজআপ তোমাকেই খুঁজছে বাংলাদেশ’ এর মাধ্যমে রাতারাতি সঙ্গীতশিল্পী হিসেবে খ্যাতি অর্জন করেন। দিনাজপুরের সঙ্গীত পরিবারের ছেলে শিবলী সাদিক পছন্দ করেন সালমাকে। ২০১১ সালে সালমা ও শিবলী সাদিকের পারিবারিকাভাবেই বিয়ে সম্পন্ন হয়।
শিবলী সাদিক সঙ্গীতচর্চা করলে পিতার উত্তরসূরি হিসেবে রাজনীতিতে মনোনিবেশ করেন। দিনাজপুর ৬ আসন থেকে পিতার মৃত্যুর পর প্রার্থী হন এবং সর্বশেষ সংসদ সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হয়।
সালমা ও শিবলির সংসারজুড়ে আসে একমাত্র কন্যা স্নেহা। রাজধানীর ধানমন্ডি এলাকায় সালমা ও শিবলী বসবাস করে আসছিলেন। সম্প্রতি সালমার পারিবারিক দ্বন্দ্ব চরমে উঠলে সালমা-ই শিবলীকে ডিভোর্সের উদ্যোগ নেন।

কিন্তু কী কারণে এ বিচ্ছেদ? এ প্রসঙ্গে ঘনিষ্ঠজনদের মত, সালমার চলাফেরায় শিবলীর ‘হস্তক্ষেপ’ বিচ্ছেদের কারণ বলে মনে কর হচ্ছে।

গত ২০ নভেম্বর রাত সাড়ে ৮ টায় রাজধানীর ধানমন্ডি এলাকার একটি রেস্তোরাঁয় তালাকনামা সম্পন্ন হয়। এসময় শিবলি সালমাকে মোহরানারার ২০ লাখ ১ টাকা বুঝিয়ে দেন। তবে একটু সূত্র জানায়, খোরপোশ ও আনুষাঙ্গিক মিলিয়ে সালমাকে ৫৬ লাখ টাকা পরিশোধ করেন শিবলী সাদিক।

সালমা ও শিবলী সাদিকের নিজস্ব নিয়মিত ব্যবহৃত মোবাইল ফোন নম্বরে বক্তব্য নেওয়ার জন্য যোগাযোগ করা হলে উভয়ের নম্বর বন্ধ পাওয়া যায়।

জানা গেছে, সালমা ধানমন্ডিতে নিজের ফ্ল্যাটে রয়েছেন, একই সাথে নিজের সঙ্গীতের কাজ নিয়ে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন। তবে কন্যা স্নেহা বাবা শিবলী সাদিকের সাথে রয়েছে।

কালের কন্ঠ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।