সাঁওতালরা অবৈধভাবে ছিল, সরকার জমি নিয়ে থাকলে অন্যায় কিছু করেনি: এরশাদ

প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূত ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদ বলেছেন, ‘গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে সাঁওতালরা সুগার মিলের জমিতে অবৈধভাবে ছিল। সরকার যদি জমি নিয়ে থাকে তাহলে অন্যায় কিছু করেনি। তবে তাদের বিকল্প ব্যবস্থা করা উচিত ছিল। কারণ ওরা গরীব মানুষ।’

বুধবার (১৬ নভেম্বর) দুপুরে ঢাকা থেকে রংপুরের দর্শনায় নিজ বাসভবন পল্লী নিবাসে এসে উপস্থিত সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এসব কথা বলেন। এ সময় তিনি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগরে সংখ্যালঘুদের ওপর হামলাকে ‘দুঃখজনক ঘটনা’ বলে উল্লেখ করেছেন। সেখানে ভাঙচুর ও লুটপাট প্রসঙ্গে তিনি বলেছেন, ‘কারা এ ঘটনা ঘটিয়েছে তা দেশবাসী জানে।’ আসন্ন জেলা পরিষদ নির্বাচনে জাতীয় পার্টি অংশ নেবে না জানিয়ে তিনি বলেন, ‘সেখানে যারা ভোটার তারা সবাই সরকারি দলের লোক। ফলে ওই নির্বাচন করে কোনও লাভ নেই।’

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে জাতীয় পার্টি অংশ নেবে না বলেও ইঙ্গিত দেন তিনি। এরশাদ বলেন, ‘সেখানে জাতীয় পার্টির শক্তিশালী কোনও প্রার্থী নেই। ফলে সেখানে আমাদের প্রার্থী জযী হবে না। তার উপর ওটা শামীম ওসমানের এলাকা। সেখানে আওয়ামী লীগ শক্তিশালী। তার পরেও ওই এলাকার এমপির সঙ্গে আলোচনা করে দেখবো।’

সম্প্রতি হাইকোর্টে নিজের দুর্নীতির মামলার আপিলের শুনানি সম্পর্কে এরশাদ বলেন, ‘আমার মনে হয় মামলায় কিছু হবে না। কারণ বিএনপি ক্ষমতায় থাকাকালে আমাকে হয়রানি করার জন্য হিংসাত্মকভাবে অনেক মামলা দিয়েছে। মামলায় গ্রেফতারও হয়েছি, জেলও খেটেছি। তবে জেল খাটার দিন বোধ হয় শেষ হয়েছে। এখন অপেক্ষা করছি যারা আমার নামে মিথ্যা মামলা দিয়েছিল সেই বিএনপি নেতাদের কবে সাজা হয় তা দেখার আশায়।’

এর আগে এরশাদ ঢাকা থেকে বিমানে সৈয়দপুর বিমানবন্দরে অবতরন করে মোটর শোভাযাত্রাসহ নিজ বাসভবনে এসে পৌঁছান। এ সময় দলের নেতা কর্মীরা তাকে স্বাগত জানান। জাপার জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক হোসেন মকবুল শাহারিয়ার, মহানগর সভাপতি মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফাসহ অন্যান্য নেতারা সেখানে উপস্থিত ছিলেন।

banglatribune

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।