জামায়াতের আমীর হবার মাত্র ১ মাসের ব্যবধানে যুদ্ধাপরাধী হ​য়ে গেলেন মকবুল আহমাদ !

জামায়াতের আমীর হবার মাত্র ১ মাসের ব্যবধানে যুদ্ধাপরাধী হ​য়ে গেলেন মকবুল আহমাদ ! একই পত্রিকায় প্রকাশিত ২ টি রিপোর্ট পর্যালোচনা করে এটি পাওয়া যায় ।

প্রকাশিত : ১৭ অক্টোবর ২০১৬

স্বাধীন বাংলাদেশে এখন পর্যন্ত জামায়াতে ইসলামী যাদেরকে তাদের নেতা বানিয়েছে তাদের মধ্যে মকবুল আহমাদই প্রথম নেতা যার বিরুদ্ধে মুক্তিযুদ্ধের সময় পাকিস্তানি সেনাবাহিনীকে সহযোগিতা বা যুদ্ধাপরাধের অভিযোগ নেই। তবে জামায়াত একান্ত বাধ্য হয়েই তাকে নেতা নির্বাচিত করেছে। কারণ দলটির যারা আলোচিত নেতা ছিলেন ইতোমধ্যে মানবতাবিরোধী অপরাধে তাদের পাঁচজনের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হয়েছে। আমৃত্যু কারাদণ্ড ভোগ করছেন একজন। ফাঁসির রায়ের পর দুইজনের শুনানি অপেক্ষায় আছে আপিল বিভাগে। এই অবস্থায় মকবুল আহমাদই সবচেয়ে ‘জ্যেষ্ঠ’ জামায়াত নেতা।

আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইবুনালের তদন্ত সংস্থার সমন্বয়ক আব্দুল হান্নানের কাছে জানতে চাইলে তিনি ঢাকাটাইমসকে বলেন, ‘জামায়াত নেতা মকবুল আহমাদের বিষয়ে আমরা মানবতাবিরোধী অপরাধের সুনির্দিষ্টভাবে কোনো অভিযোগ পাইনি। যেহেতু অভিযোগ পাইনি সুতরাং তদন্তের প্রশ্নই উঠে না।’ (https://goo.gl/NukIjL)

প্রকাশিত : ১৪ নভেম্বর ২০১৬

জামায়াতে ইসলামীর আমির মকবুল আহমাদের বিরুদ্ধে একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধের কিছু তথ্য প্রমাণ পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের তদন্ত সংস্থার প্রধান সমন্বয়ক আব্দুল হান্নান খান। সোমবার ধানমন্ডিতে সংস্থাটির প্রধান কার্যালয়ে মৌলভীবাজারের তিন জনের বিরু্দ্ধে চূড়ান্ত তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশের সময় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন। হান্নান খান বলেন, পত্রিকায় প্রকাশিত প্রতিবেদনের ভিত্তিতে মকবুল আহমেদের বিরুদ্ধে প্রাথমিক তদন্ত শুরু করেছে তদন্ত সংস্থা। তদন্তে অগ্রগতিও হয়েছে। কিছু তথ্য-প্রমাণ পাওয়া গেছে। প্রাথমিক তদন্ত শেষ আনুষ্ঠানিক তদন্ত শুরু করার বিষয়টি জানানো হবে।(https://goo.gl/BJt9W7)

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।