আ.লীগ অফিসে ডেকে নিয়ে মুক্তিযোদ্ধাকে মারধর

বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে এক মুক্তিযোদ্ধাকে আওয়ামী লীগ অফিসে ডেকে নিয়ে মারধর করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। আহত মুক্তিযোদ্ধা মো. আশরাফ আলী হাওলাদারকে (৭০) উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

সোমবার রাত ৮টার দিকে নিশানবাড়িয়া ইউনিয়নের কুদঘাটা বাজারে এ ঘটনা ঘটে। আহত মুক্তিযোদ্ধা মো. আশরাফ আলী হাওলাদারকে গতকাল রাত ১২টার দিকে মোরেলগঞ্জ উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এ ঘটনার প্রতিবাদে মঙ্গলবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত মোরেলগঞ্জ শরণখোলা সড়কে অবরোধ কর্মসূচি পালন করছে ক্ষুব্ধ এলাকাবাসী। পরে পৌর এলাকায় মানববন্ধন অনুষ্ঠিয় হয়।
এদিকে আহত মুক্তিযোদ্ধার ছেলে হাওলাদার রাসেল মোড়েলগজ্ঞ থানায় ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রহিম বাচ্চুসহ অপর একজনের নামে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। তবে বিকেল পর্যন্ত থানায় কোনো মামলা করা হয়নি বলে জানায় পুলিশ।

জানা যায়, তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে নিশানবাড়িয়া ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রহিম বাচ্চু ওই মুক্তিযোদ্ধাকে আওয়ামী লীগ অফিসে ডেকে আনেন।

সেখানে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক চেয়ারম্যান আব্দুর রহিম বাচ্চু মুক্তিযোদ্ধা আশরাফ আলীকে চড়থাপ্পড় মেরে চেয়ার থেকে নিচে ফেলে দেন। এরপর বাচ্চু চেয়ারম্যানের সহযোগিরা ওই মুক্তিযোদ্ধাকে বেধড়ক মারধর করে। গুরুতর আহতাবস্থায় আশরাফ আলীকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
ঘটনার প্রতিবাদে মঙ্গলবার সকাল ৭টা থেকে মোরেলগঞ্জের নব্বইরশি বাসস্ট্যান্ডে টায়ার জ্বালিয়ে সকল প্রকার যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়। দুপুর পর্যন্ত চলে এ অচলাবস্থা। বিকেলে থানা পুুলিশ ও উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মো. লিয়াকত আলী খান যৌথভাবে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে সক্ষম হয়।
মুক্তিযোদ্ধাকে মারধর করার প্রতিবাদে দুপুরে মোড়েলগজ্ঞ পৌর এলাকায় মানববন্ধন পালিত হয়েছে। এ সময়ে পৌর মেয়র ও আওয়ামী লীগ নেতা মনিরুল ইসলাম তীব্র নিন্দা জানিয়ে মুক্তিযোদ্ধাদের সকল কর্মসূচিতে সহযোগিতার আশ্বাস দেন।

পরে মুক্তিযোদ্ধাদের পক্ষ থেকে এ ঘটনার বিচার দাবি করে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার মাধ্যমে জেলা প্রশাসক বরাবরে স্মারক লিপি প্রদান করা হয়।

jagonews24

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।